kalerkantho


লারার ফিরে আসা

পনেরো বছর পর আবার পর্দায় হাজির হচ্ছেন লারা ক্রফট। দর্শকনন্দিত ‘টুম রাইডার’-এর নতুন কিস্তি মুক্তির আগে ছবিটি নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

১৫ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



লারার ফিরে আসা

১৯৯৬ সালে প্রথম কম্পিউটারের পর্দায় আবির্ভাবের পর থেকেই বিশ্বজুড়ে কি-বোর্ড কিংবা জয়স্টিকে ঝড় তুলে চলছে টুম রাইডার গেম সিরিজটি। গেমাররা ২২ বছর ধরে বারবার প্রধান চরিত্র লারা ক্রফটের মাধ্যমে হারিয়ে গেছে অ্যাডভেঞ্চারের এক রহস্যময় জগতে। দুই হাতে পিস্তল নিয়ে লারা ক্রফট পরিণত হয়েছে এক কিংবদন্তিতে। ২০০১ সালে অ্যাঞ্জেলিনা জোলি প্রথম লারা ক্রফট হিসেবে বড় পর্দায় হাজির হন, বক্স অফিসেও ঝড় তোলেন। ২০০৩ সালে ছবিটির সিক্যুয়াল মুক্তি পেলেও মন কাড়তে পারেনি। প্রায় বছর পনেরো বিরতির পর আবারও হাজির হচ্ছে আর্কিওলজিস্ট অ্যাডভেঞ্চারার লারা ক্রফট। সম্পূর্ণ নতুনরূপে শুরু হওয়া চলচ্চিত্রটিতে এবার বিশ্বজুড়ে দর্শকরা লারা ক্রফট হিসেবে দেখতে পাবে অস্কার বিজয়ী অভিনেত্রী অ্যালিসিয়া ভিকান্দারকে।

চলচ্চিত্রটির কাহিনি আবর্তিত হবে লারার প্রথম অ্যাডভেঞ্চার ঘিরে। বাবার অন্তর্ধানের পর একাই বড় হওয়া লারা মিশনে নামবে বাবাকে খুঁজে বের করার। বাবা রিচার্ড ক্রফট যে দ্বীপ থেকে উধাও হয়েছিল সেখানেই শুরু হবে তার নতুন জীবন। বাবাকে খুঁজে বের করার লড়াইয়ে তাকে মুখোমুখি হতে হবে ভয়াবহ এক ছায়া সংগঠনের, উদ্ঘাটন করতে হবে প্রাচীন এক রহস্য। ভিকান্দারের পাশাপাশি এ চলচ্চিত্রে আরো অভিনয় করেছেন ডমিনিক ওয়েস্ট, ওয়ালটন গগিন্স, ড্যানিয়েল উ প্রমুখ।

২০০৩ সালে ‘টুম রাইডার : ক্রেডল অব লাইফ’ মুখ থুবড়ে পড়ার পর বেশ কয়েকবারই লারাকে ফের বড় পর্দায় তুলে আনার চেষ্টা হয়েছে। মেগান ফক্স, এমিলিয়া ক্লার্কের মতো তারকাদের বিবেচনা করে পরিকল্পিত প্রকল্পগুলো আলোর মুখ দেখেনি। ২০১৩ সালে বাজারে আসা টুম রাইডারের নতুন গেম অবলম্বনে লেখা হয় চিত্রনাট্য। প্রথমে ‘স্টার ওয়ারস’খ্যাত ডেইজি রিডলির লারা ক্রফটের ভূমিকায় অভিনয়ের কথা থাকলেও হয়নি। নেওয়া হয় সুইডিশ অভিনেত্রী ভিকান্দারকে। পরিচালকের আসনে বসেন নরওয়েজিয়ান চলচ্চিত্রকার রোর উথাউগ। এটিই তাঁর প্রথম হলিউডের চলচ্চিত্র।

‘টুম রাইডার’-এ নিজেকে লারা হিসেবে তৈরি করতে কঠোর শারীরিক পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে ভিকান্দারকে। ছোটবেলা থেকেই লারা ক্রফটের বড় ভক্ত এই তারকা বক্সিং, সাঁতার, সাইক্লিং করে নিজেকে তৈরি করেছেন। চরিত্রটি সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘লারা বিশ্বজুড়ে নারীদের অনুপ্রেরণার নাম। জীবনের কঠোরতাকে দূরে সরিয়ে এক যোদ্ধার রূপ ধারণ করে, জয়ই তার একমাত্র লক্ষ্য। এমন চরিত্রের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিতে ইচ্ছা করে। সেটাই দিয়েছি। গেমে উপস্থাপিত আবেদনময়ী লারা ক্রফটের সঙ্গে বৈসাদৃশ্যের অভিযোগ তুলছেন অনেকেই। এ নিয়ে সোজাসাপটা জবাব ২৯ বছর বয়সী এ অভিনেত্রীর, ‘লারা ক্রফটের আবেদন তার শরীরে নয়, বরং লড়াকু মানসিকতায়।’


মন্তব্য