kalerkantho


আবার আসছে শবর

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের পুলিশ গোয়েন্দা ‘শবর’কে নিয়ে প্রথম দুই ছবিই ব্যবসাসফল। পরেরটি ‘আসছে আবার শবর’ মুক্তির আগে ছবিটি নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

১৮ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আবার আসছে শবর

ব্যোমকেশ আর ফেলুদাময় টালিগঞ্জে নতুন গোয়েন্দা ‘শবর’কে তেমন কেউ চিনত না। অভিনেতা হিসেবে মোটামুটি পরিচিতি থাকলেও পরিচালক হিসেবে ততটা পরিচিতি ছিল না অরিন্দম শীলেরও। কিন্তু ‘এবার শবর’ মুক্তির পর দুটিই হয়েছে। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের লেখা এই গোয়েন্দা চরিত্রকে নিয়ে প্রথম ছবি ব্যবসা করেছে দারুণ, পরিচালক হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন অরিন্দমও। “শীর্ষেন্দুদার লেখা হলেও শবরকে আগে মানুষ ততটা চিনত না। কিন্তু সিনেমা হওয়ার পর বইয়ের জনপ্রিয়তা ব্যাপক বেড়ে গেছে, শবর সমগ্রও বের হয়েছে। আর ‘আবর্ত’ মুক্তির পর পরিচালক হিসেবে ততটা পরিচিতি পাইনি, কিন্তু ‘এবার শবর’ সব বদলে দিয়েছে,” বলছেন পরিচালক। তাই পরের ছবি ‘ঈগলের চোখ’ নিয়ে দ্রুতই হাজির হন। সেটাও সুপারহিট হয়। ‘শবর’ ফ্র্যাঞ্চাইজির তৃতীয় ছবি ‘আসছে আবার শবর’ তৈরি হয়েছে শীর্ষেন্দুর উপন্যাস ‘প্রজাপতির মৃত্যু ও পুনর্জন্ম’ অবলম্বনে। মূল উপন্যাসে দেখা যায়, ব্রোকেন ফ্যামিলির এক ‘উশৃঙ্খল’ কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। পুলিশ গ্রেপ্তার করে এক গ্যারেজ মালিককে, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয় তাঁর ছেড়ে যাওয়া স্ত্রীকে। বইয়ের এই ঘটনা অবশ্য খানিকটা বদল করেছেন পরিচালক। ‘সিনেমার জন্য প্রতিবারই বইয়ের ঘটনা খানিকটা বদল করতে হয়েছে। এতে শীর্ষেন্দুদা আপত্তি করেননি, তিনি বরং শবর দেখে খুশি হয়েছেন। বলেছেন, শুধু খেয়াল রাখবেন শবর যেন মদ না ছোঁয়। বইতে না থাকলেও সিনেমায় আমরা লখনউ দেখিয়েছি। এটা করা হয়েছে লোকেশনের  বৈচিত্র্য আনতে।’

প্রথম দুই ছবি সফল হওয়ায় তৃতীয়টি নিয়েও আত্মবিশ্বাসী পরিচালক, ‘শবর নিয়ে মানুষের আগ্রহ আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির তৃতীয় ছবি বানানো সোজা নয়। আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি। এবার শবর অনেক বেশি ভায়োলেন্ট। ছবিতে সিরিয়াল কিলিং আছে, অনলাইন ডেটিং সাইটগুলোতে কী হয় সেটা আছে, সন্তানকে সময় না দিলে কী হয় দেখানো হয়েছে।’

আগের দুই ছবির মতো এবারও শবর চরিত্রে আছেন শাশ্বত চ্যাটার্জি, যাঁকে নিয়ে তৈরি হয়েছিল অনিশ্চয়তা, পরিচালক শুরু করেছিলেন নতুন শবরের খোঁজও। ‘থাইরয়েডের সমস্যার জন্য ওর ওজন অনেকটা বেড়ে যায়। কিছুতেই নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছিল না। ও নিজেও একটু অলস হয়ে পড়েছিল। শবরকে ফিট না হলে তো হবে না,’ বলছেন পরিচালক। বাদ পড়ার আশঙ্কা থেকেই কি না, গা ঝেড়ে উঠে দাঁড়িয়েছিলেন শাশ্বত। সিগারেট ছেড়েছেন, খাওয়া কমিয়ে যতটা সম্ভব ঝরঝরে হয়েছেন। অভিনেতা বলছেন শবর হওয়া কতটা চ্যালেঞ্জের, ‘ফিটনেস তো আছেই, কিন্তু শবর চরিত্রে অভিনয়টাই বড় চ্যালেঞ্জ। কারণ এটা এমন এক চরিত্র, যার রসকষ নেই। এক্সপ্রেশন নেই। শীর্ষেন্দুর লেখায়ই আছে, শবর যেন পাথরে গড়া। শবরের মধ্যে অন্য রকম একটা মাস্তানি আছে। সেটা ফুটিয়ে তোলা কঠিন।’

ছবিতে শবরের সহকারী নন্দর চরিত্রে আগের মতোই আছেন শুভ্রজিত্, পুলিশের চরিত্রে গৌরব চক্রবর্তী। এ ছাড়া ছবিতে অভিষেক হচ্ছে একঝাঁক নতুন তারকারও। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য দর্শনা ভৌমিক, যিনি এই ছবির পরিচালকের সার্টিফিকেট পেয়ে অঞ্জন দত্তর পরের ছবির মূল চরিত্র পেয়েছেন।

নতুন শবর মুক্তির আগেই পরিচালক পরের শবরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে এ নিয়ে কিছুটা মন খারাপ আছে পছন্দের গল্প না পাওয়ায়, “শবর সিরিজে আমার সবচেয়ে পছন্দের লেখা ‘সিঁড়ি ভেঙে ভেঙে’। প্রথম থেকেই ওটা নিয়ে ছবি করতে চাই। এ জন্য চিরঞ্জত চক্রবর্তী আর মমতা শংকরকে ঠিকও করে রেখেছি। কিন্তু মুশকিল হলো, এই লেখার স্বত্বটা শীর্ষেন্দুদার কাছে নেই। তিনি অনেক চেষ্টা করেও এবারও দিতে পারছেন না। তবে আমাদের জন্য নতুন শবর লিখতে রাজি হয়েছেন। এটাও বড় পাওয়া।’



মন্তব্য