kalerkantho


বেলার সারা বেলা

মূলত তিনি অভিনেত্রী, তবে তাঁর ফ্যাশন নিয়ে আলোচনা হয় বেশি। আগামীকাল ‘প্রফেসর মার্সটন অ্যান্ড দ্য ওয়ান্ডার ওম্যান’ মুক্তির আগে অস্ট্রেলীয় অভিনেত্রী বেলা হিথকোটকে নিয়ে লিখেছেন খালিদ জামিল

১২ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০



বেলার সারা বেলা

রেড কার্পেটে কিভাবে হাঁটতে হয়, সেটা যে কেউ শিখে নিতে পারেন বেলা হিথকোটের কাছ থেকে। চোখ বুজে বলে দেওয়া যায়, ঠকবেন না।

কারণ ফ্যাশনট্যাশন নিয়েও তাঁর দখল রীতিমতো ঈর্ষণীয়; যদিও তিনি অভিনেত্রী। হরর কমেডি ‘ডার্ক শ্যাডোজ’ দিয়ে যে ঝলক দেখিয়েছিলেন, সেটা বজায় রেখেছেন টিভি সিরিজ ‘দ্য ম্যান ইন দ্য হাই ক্যাসল’-এ। ক্রিশ্চিয়ান গ্যারির ‘ফিফটি শেডস ডার্কার’ ছবিতেও কম যাননি। প্রতিটি সিনেমায় বেলা হাজির হয়েছেন ভিন্ন রূপে। একই সঙ্গে চোখে পড়েছে নিত্যনতুন ফ্যাশনও। তাঁর প্রতিটি চরিত্র কল্পনার টাইমলাইনে ফেলা গেলে মনে হবে, এই অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রী নিজেই যেন এক ফ্যাশন বিবর্তনের গল্প। শুধু সিনেমার পর্দায় নয়, তারকাখ্যাতি পাওয়ার পর থেকে সব সময় সবার সামনে এসেছেন নিজস্ব জমকালো ফ্যাশন নিয়ে। কিন্তু প্রশ্ন করা হলে একেবারেই অন্য রকম উত্তর পাওয়া যায়, ‘আমি খুব সাধারণভাবেই চলাফেরা করি। এটা সত্য যে আমি ফ্যাশনসচেতন এবং অনেক স্টাইলিশ বন্ধুও আছে, কিন্তু নির্দিষ্ট কোনো কিছু অনুসরণ করি না। খুব সাধারণ থাকতে পছন্দ করি, সেটা জীবন আর স্টাইল দুই ক্ষেত্রেই’—বলেন বেলা। এমন কথা শুনে তাঁকে অনুসরণ করতে আগ্রহীরা একটু দুঃখই পেয়েছেন বটে!
হতাশ হওয়ার মতো আরো কিছু তথ্য আছে। বেলার পোশাকে আগ্রহ অনেকের। কিন্তু শপিংয়ের ক্ষেত্রে প্রিয় জায়গাগুলোর কথা নিজেই জানিয়েছেন ২৯ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী। লস অ্যাঞ্জেলেসের রেসেস নামের একটি পুরনো জিনিসের দোকান অভিনেত্রীর কেনাকাটার জন্য সবচেয়ে পছন্দ! সেখান থেকে প্রায়ই তিনি অন্যের ব্যবহূত নানা কিছু কিনে থাকেন। তবে ফ্যাশন নিয়ে বেশি আলোচনায় তিনি বেজায় বিরক্ত। বলেন, ‘আমার মূল কাজ অভিনয়, সেটাই মন দিয়ে করতে চাই। একবার-দুবার হলে ঠিক আছে, কিন্তু বারবার আমাকে ফ্যাশনের কারণে শিরোনাম করা হলে খারাপ লাগে। মডেলিং তো আমার পেশা নয়। ’
শুরুর দিকে ১০ হাজার ডলারের লেজার বৃত্তি জিতেছিলেন হিথ। সেই টাকা ক্যারিয়ার গড়ে নিতে অনেকটাই সাহায্য করেছিল। বৃত্তির টাকা হাতে পাওয়ার পরই চলে আসেন লস অ্যাঞ্জেলেসে। শুরু করেন নতুন জীবন।
এমন আনন্দের খবরের পাশাপাশি রয়েছে বিব্রতকর অনেক স্মৃতিও। একবার তো হলিউড সুপারস্টার ব্র্যাড পিটের সঙ্গে তাঁর প্রেমের গুঞ্জন রটে গেল। এ নিয়ে যখন তুলকালাম কাণ্ড, বেলা তখন নিউ ইয়র্কে। এক বন্ধু ই-মেইল করল—‘এত দূর এগোলে, জানালে না তো কিছুই। ’ বেলা পড়লেন আকাশ থেকে। জানা গেল, বেলার সঙ্গে ব্র্যাড পিটের প্রেমের গল্প বেশ সরসভাবেই লিখেছে স্টার ম্যাগাজিন। বেলা বলেন, ‘খুব বেশি ভড়কে যাইনি। কারণ সত্যর চেয়ে অনেক বেশি দূরে ছিল সেই খবর। জানতাম দুদিন পরই মানুষ সেটা জানবে। উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। ’
আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে বেলার নতুন ছবি ‘প্রফেসর মার্সটন অ্যান্ড দ্য ওয়ান্ডার ওম্যান’। অ্যাঞ্জেলা রবিনসন পরিচালিত জীবনীভিত্তিক এই চলচ্চিত্রে তাঁর সঙ্গে দেখা যাবে লুক ইভান্স ও রেবেকা হলকেও।


মন্তব্য