kalerkantho


ফিরছেন কিংসম্যান

তিন বছর আগে খানিকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই দুর্দান্ত ব্যবসা করেছিল ‘কিংসম্যান : দ্য সিক্রেট সার্ভিস’। ফল ট্যারন এগারটন রাতারাতি হয়ে ওঠেন সারা দুনিয়ার তরুণদের প্রিয় পাত্র। সেই ছবির সিক্যুয়াল ‘কিংসম্যান : দ্য গোল্ডেন সার্কেল’ মুক্তির আগে অভিনেতাকে নিয়ে লিখেছেন খালিদ জামিল

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



ফিরছেন কিংসম্যান

এখনকার তরুণীরা ট্যারন এগারটন বলতে পাগল, কিন্তু তাদের অনেকেই হয়তো জানে না, তাদের প্রিয় অভিনেতার যাত্রাটা শুরু হয়েছিল অভিনেত্রী হিসেবে! ঘটনা কিন্তু সত্যি। জীবনের প্রথম অভিনয় ছিল নারীর ভূমিকায়।

করেছিলেন শেকসপিয়ারের ‘আ মিডসামার নাইটস ড্রিম’ নাটকের ফ্লুট চরিত্র। ‘ককটেল পার্টি পোশাকে যখন মঞ্চে ঢুকেছিলাম তখন হাসির রোল পড়ে গিয়েছিল। বুঝতে মোটেও অসুবিধা হয়নি যে তারা আমাকে দেখেই হাসছে। অনেক বেশি ঘাবড়ে গিয়েছিলাম’, সেদিনের কথা মনে পড়লে এখন নিজেরই হাসি পায় ওয়েলসের এই অভিনেতার।

নাটকে এমন নাটকীয় শুরুর পর এগারটনের ক্যারিয়ারটা এগিয়েছে নাটকীয়ভাবেই। রয়াল একাডেমি অব ড্রামাটিক আর্টে নাটক নিয়ে পড়াশোনা করলেন। লন্ডনের ন্যাশনাল থিয়েটারে বেশ কয়েকটি নাটক করেছেন, কাজ করেছেন ব্রিটিশ টিভি শোতেও। তবে বড় পর্দায় ঠিকঠাক সুযোগ পাচ্ছিলেন না। যে ‘কিংসম্যান’ দিয়ে উত্থান, সেটা পেতেও কাঠখড় পোড়াতে হলো বিস্তর।

আগে আধা ডজন পরিচালকের পেছনে ঘুরেছেন মাসের পর মাস। ম্যাথিউ ভনের বাড়িতে গিয়ে স্ক্রিপ্ট পড়েও শোনাতে হয়েছে। স্টান্টম্যানের অডিশনও দিয়েছেন। অস্ত্র হাতে হয়েছে স্ক্রিন টেস্ট। এত সব ঝক্কি-ঝামেলার পর সুযোগ মিলেছে। তবে এর আগে নিতে হয়েছে তিন মাসের প্রশিক্ষণ। কষ্ট করলে তো কেষ্ট মেলেই। এগারটনেরও মিলেছে। এক ছবি দিয়েই বনে গেছেন তারকা। তবে ‘সত্যিকারের তারকা’ বোধ হয় এখনো হতে পারেননি। এ নিয়ে তাঁর অবশ্য দুঃখ নেই, ‘রাস্তায় এখনো বেশ স্বচ্ছন্দেই চলাফেরা করতে পারি। কেউ চিনতে পারে না। কেউ ছুটে আসে না, ঘিরে ধরে না। আসলে এ রকম থাকতে পারাটাই ভালো। চলাফেরায় এই ব্যাপারটা না থাকলে কী হবে ভাবতে পারছি না। ’ ‘কিংসম্যান’ যে পরিচিতি এনে দিয়েছে, সেটা হেলায় হারাতে চান না এগারটন। তবে চান না কেবল স্পাই-থ্রিলার ঘরানায় আটকে থাকতেও। সব রকম চরিত্র চান আর সঙ্গে ‘কিংসম্যান’-এর মতো সফল সিরিজ তো আছেই।

আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে সেই কিংসম্যানের নতুন কিস্তি ‘কিংসম্যান : দ্য গোল্ডেন সার্কেল’। পরিচালনায় আছেন ম্যাথু ভনই। অ্যাকশন স্পাই কমেডি ধাঁচের এই ছবিটি নির্মিত হয়েছে মার্ক মিলার ও ডেভ গিবসনের সেই ‘কিংসম্যান : দ্য সিক্রেট সার্ভিস’ কমিক বই অবলম্বনেই। কিংসম্যানের প্রথম ছবিতে কলিন ফার্থ কেবল একজন অভিনেতাই ছিলেন না, কাজ করেছেন নবাগত এগারটনের মেন্টর হিসেবেও। আর সে কারণে এই ব্রিটিশ অভিনেতাকে রীতিমতো গুরু মানেন এগারটন।


মন্তব্য