kalerkantho


নায়িকা যখন পরিচালক

ঢাকাই ছবির জনপ্রিয় চার নায়িকা পরিচালনায় নাম লিখিয়েছেন। ক্যামেরার সামনে থেকে কেন তাঁরা পেছনে এলেন? অভিজ্ঞতাই বা কী? লিখেছেন রূপক জামান

৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০




নায়িকা যখন পরিচালক

কোহিনূর আক্তার সুচন্দা

 

১৯৯৬ সালে ছেলে তপু রায়হানকে নায়ক করে বানিয়েছিলেন ‘সবুজ কোট কালো চশমা’, নায়িকা পশ্চিমবঙ্গের প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদী। তবে কথা বলতে চাইলেন ‘হাজার বছর ধরে’ নিয়ে। জহির রায়হানের উপন্যাস অবলম্বনে ছবিটি নির্মাণ করেছিলেন ২০০৫ সালে। পর্দার সামনে থেকে পেছনে আসার কারণটা জানালেন ‘জীবন থেকে নেয়া’ অভিনেত্রী, “আমাদের সমাজে এখনো নারীরা নানাভাবে নির্যাতিত হচ্ছে। তাদের নানাভাবে শিকল পরিয়ে রাখার চেষ্টা করা হয়। প্রতিবাদ জানাতেই ছবিটি নির্মাণ করেছি। ‘হাজার বছর ধরে’ উপন্যাসটা বাছাই করেছি এর বিষয়বস্তুর কারণে। ”

এই ছবি নির্মাণের জন্য ১৫ লাখ টাকা সরকারি অনুদান পেয়েছিলেন। যদিও পুরো ছবি শেষ করতে খরচ হয়েছিল প্রায় কোটি টাকা। বাকি টাকা নিজের পকেট থেকেই দিয়েছেন। প্রধান তিন চরিত্রে অভিনয় করেছেন রিয়াজ, শশী ও এ টি এম শামসুজ্জামান।

শুটিংয়ের সময় ইউনিটে একবার ডাকাতদল এসে হাজির হয়েছিল। ইউনিটের সবাই লুকিয়ে গেলেও সুচন্দা একাই তাদের মোকাবেলা করেছিলেন। ‘তারা আমার কাছে এসে সরাসরি চাঁদা চাইল। আমি বললাম, আমার কাছে বস্তা ভর্তি টাকা নেই। বড়জোর আপনাদের আমি শুটিং দেখার সুযোগ করে দিতে পারি। তারা আর কথা বাড়াল না। শুটিংয়ের জন্য আনা মিষ্টি দিয়ে তাদের আপ্যায়ন করি’—বললেন সুচন্দা।

এবার তথ্যচিত্র নির্মাণে নামছেন এই অভিনেত্রী। সুচন্দা, ববিতা ও চম্পা—তিন বোনকে নিয়ে ‘তিনকন্যা’ বানাবেন শিগগিরই।

 

সারাহ বেগম কবরী

২০০৬ সালে মুক্তি পায় এই অভিনেত্রীর পরিচালনায় প্রথম ছবি ‘আয়না’। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফেরদৌস ও সোহানা সাবা। নির্মাণে আসার কারণটাও বললেন ‘সুতরাং’ অভিনেত্রী, “তখন দেশে এসিড সন্ত্রাস বেশ বেড়ে গিয়েছিল। কয়েক দিন পর পরই পত্রিকায় আসত, কোনো নারীর মুখে এসিড ছুড়ে মেরেছে বখাটেরা। তেমনই একটা সত্য ঘটনা আমাকে ভীষণভাবে নাড়া দিয়েছিল। এ কারণেই নির্মাণে আসি এবং ‘আয়না’ বানাই। ”

ছবি নির্মাণে সময় লেগেছিল দুই বছর। কেন দেরি হয়েছিল, সেই গল্প বলতে চাইলেন না। শুধু বললেন, ‘মাছরাঙার পিন্টু ভাই ও চ্যানেল আইয়ের সাগর ভাইয়ের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। তাঁরা না থাকলে ছবিটি শেষ করা আমার পক্ষে সম্ভব হতো না। ’

দুই বছর আগে ঘোষণা দিয়েছিলেন দ্বিতীয় ছবি ‘এই তুমি সেই তুমি’র। এই ছবিও পড়েছে বাজেট সমস্যায়। কবরী বলেন, ‘আমার ছবি বানাতে দেড় কোটি টাকা লাগবে। পরিচিতদের সঙ্গে কথা বলেছি। কয়েকটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলাপ করেছি। শুরুতে অনেকে আশ্বাস দিলেও পরে আর খবর নেই। তাদের ব্যবহারে খুব হতাশ হয়েছি। বাংলাদেশে বিত্তশালী মানুষের অভাব নেই। তারা চাইলে শুধু আমার ছবি নয়, আরো অনেক নির্মাতাকেই সহযোগিতা করতে পারে। চলচ্চিত্রের সঙ্গে ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে আছি। অথচ আমি যখন একটা চলচ্চিত্র নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি, তখন কোনো সহযোগিতাই পাচ্ছি না! সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ও কিন্তু আমাকে সহযোগিতা করতে পারে। ’

দুই প্রজন্মের দুই জুটি নিয়ে ছবির গল্প। প্রথম জুটি কবরী ও আলমগীর। আরেক জুটিতে থাকবেন আরিফিন শুভ ও কলকাতার কোনো নায়িকা। ছবির গল্প, সংলাপ আর চিত্রনাট্য লিখেছেন কবরী নিজেই।

 

আরিফা পারভীন মৌসুমী

২০০৩ সালে মুক্তি পায় মৌসুমী পরিচালিত প্রথম ছবি ‘কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি’। প্রযোজনা সংস্থা ইমপ্রেস টেলিফিল্মের আগ্রহেই পরিচালনায় উদ্বুদ্ধ হন ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ অভিনেত্রী। রাবেয়া খাতুনের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ছবিটিতে অভিনয় করেন মৌসুমীও, সঙ্গে ছিলেন ফেরদৌস ও রাজ্জাক। প্রথমবার পরিচালনার অভিজ্ঞতা কেমন ছিল? ‘বাজেটটা যদি আরেকটু বেশি পেতাম তাহলে হয়তো আরো ভালো বানাতে পারতাম। তবু ইমপ্রেসের কাছে কৃতজ্ঞ, তারা আমাকে পরিচালনার যোগ্য ভেবেছেন। ’

দুই বছর পর মুশফিকুর রহমান গুলজারের সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালনা করেন ‘মেহেরনিগার’। এটিতেও মৌসুমীর বিপরীতে ফেরদৌস। এক যুগ পর আবারও পরিচালনায় নামছেন মৌসুমী। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের শততম প্রযোজনা হবে এটি। মৌসুমী জানালেন, বড় বাজেটের ছবি। চিত্রনাট্যের কাজ চলছে। শিগগিরই শুটিংয়ে যাবেন।

 

মেহের আফরোজ শাওন

গত বছর মুক্তি পায় তাঁর প্রথম পরিচালিত ছবি ‘কৃষ্ণপক্ষ’। হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস ‘কৃষ্ণপক্ষ’ অবলম্বনে নির্মিত ছবিতে অভিনয় করেন রিয়াজ ও মাহিয়া মাহি। হঠাৎ করে চলচ্চিত্র পরিচালনায় এসেছেন ‘শ্রাবণ মেঘের দিন’ অভিনেত্রী। “ইমপ্রেস টেলিফিল্ম থেকে হুট করে বলা হলো, হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে তাঁকে শ্রদ্ধা জানিয়ে কিছু একটা করতে হবে। ওই মিটিংয়েই ‘কৃষ্ণপক্ষ’ বানানোর সিদ্ধান্ত হয় এবং সেটা আমাকেই পরিচালনা করতে হবে”—বললেন শাওন।

১৩ নভেম্বর ২০১৫, হুমায়ূনের জন্মদিনের আগে মাত্র দেড় মাস সময় পেলেন হাতে। সব ঠিকঠাকই চলছিল, হুট করেই শুটিংয়ে হার্ট অ্যাটাক হলো নায়ক রিয়াজের। সার্জারি শেষে রিয়াজকে কয়েক মাস বিশ্রাম নিতে বলেছিলেন ডাক্তার। দুই সপ্তাহ পরই আবার শুটিংয়ে হাজির রিয়াজ। তবু হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনে ছবি মুক্তি দেওয়া সম্ভব হয়নি। পরের বছর ২৬ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পায় ছবিটি।

দ্বিতীয় ছবি ‘নক্ষত্রের রাত’ নির্মাণের প্রস্তুতি নিয়েছেন এই অভিনেত্রী। এটিও হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে। এবারও নায়িকা মাহি, নায়ক নবাগত বাঁধন।


মন্তব্য