kalerkantho


চাঁদের আলোয় কয়েকজন কালো যুবক

কৃষ্ণাঙ্গদের জয়জয়কার এবারের অস্কারে। তবু ‘মুনলাইট’-এর জয় চমকে দিয়েছে সবাইকে। তারকাখ্যাতি দূরের কথা, এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের গল্প নিয়ে ছবি যে সেরার পুরস্কার পাবে—কে ভেবেছিল! অনেক নাটকীয়তার পর অস্কার জেতা ছবিটি নিয়ে লিখেছেন হাসনাইন মাহমুদ

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



চাঁদের আলোয় কয়েকজন কালো যুবক

পরিচালক ব্যারি জেনকিন্সের হতভম্ব অবস্থা। হওয়ারই কথা।

পুরস্কার নিয়ে যে ‘নাটক’ হয়েছে সে জন্য অবশ্য নয়, তাঁর ছবি যে জিতবে এটা তিনি বিশ্বাসই করতে পারছিলেন না।   ‘এটা শুধু স্বপ্নেই সম্ভব। সম্পূর্ণ কৃষ্ণাঙ্গ অভিনেতা ও সমকামিতা নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্র সেরা হয়েছে বিশ্বাস করা কঠিন,’ বলেন তিনি।

ট্যারেল অ্যালভিন ম্যাকক্রনির ‘ইন মুনলাইট ব্ল্যাক বয়েজ লুক ব্লু’ নাটক থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি ‘মুনলাইট’। যুক্তরাষ্ট্রের এক সাধারণ কৃষ্ণাঙ্গ যুবকের ছোট থেকে বড় হওয়ার গল্প। বিস্তারিত বললে এটা কাইরনের গল্প। মায়ামির অন্ধকারাচ্ছন্ন এলাকায় বড় হওয়া তরুণের জীবনের তিনটি অধ্যায় চিত্রায়িত হয়েছে। মাদকাসক্ত মা, কিংবা সবচেয়ে প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে সমকামিতার সম্পর্কই কাইরনের জীবনকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে। লিটল, কাইরন, ব্ল্যাক- এ তিন অধ্যায়ে বিভক্ত চলচ্চিত্রটির প্রেক্ষাপট শুধু বর্ণবৈষম্য বা সমকামিতা নয়।

চলচ্চিত্রটি একটি উপাখ্যান সৃষ্টি করেছে, যা ভালোবাসতে শেখায়, নিজেকে খুঁজে পাওয়ার সবচেয়ে কঠিন সংগ্রামে নামতে শেখায়।

কাইরনের জীবনের তিন অধ্যায়ে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে  অ্যালেক্স হিবার্ট, অ্যাস্টন স্যান্ডার্স এবং ট্রিভান্টে রোডস। কাইরনের প্রেমিক এবং সবচেয়ে কাছের বন্ধু কেভিনের ভূমিকায় যথাক্রমে জেডেন পিনার, ঝ্যারেল জেরোম এবং আন্দ্রে ওলাঁদ।

ছবিতে কাইরনের মা মাদকাসক্ত। কাকতালীয়ভাবে পরিচালক জেনকিন্স ছোটবেলায় নিজের মাকে একই অবস্থায় দেখেছেন। শুধু এটাই নয়, পরিচালকের নিজের ছোটবেলা কেটেছে মায়ামিতে। সেটা থেকে অনুপ্রাণিত হয়েই এ ছবি। সাক্ষাত্কারে তিনি নিজের ছোটবেলাকে ‘অসাধারণ সংগ্রাম’ বলে অভিহিত করেছেন। ২০১৫ সালে মাত্র ২৫ দিনে দক্ষিণ ফ্লোরিডায় ছবির শুটিং হয়।

সেরা ছবি ছাড়াও সেরা পার্শ্ব অভিনেতার অস্কারও পায় ছবিটি [মাহেরশালা আলী]।


মন্তব্য