kalerkantho


অভিনেত্রী সুইটি

আগের মতো এখন আর অভিনয়ে অত ব্যস্ততা নেই। সম্প্রতি ‘অভিনয়শিল্পী সংঘ’র নির্বাচনে সরব হয়েছেন। সহসভাপতি পদে নির্বাচিতও হয়েছেন। তানভীন সুইটিকে নিয়ে লিখেছেন মীর রাকিব হাসান

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



অভিনেত্রী সুইটি

‘অভিনয়শিল্পী সংঘ’র নির্বাচনের হাওয়া এখনো বইছে। নির্বাচনের আগে ১৫ দিন ছিলেন এ নিয়ে তুমুল ব্যস্ত। দিনে ১২ থেকে ১৪ ঘণ্টা তাঁর দেখা মিলেছে শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণে। প্রত্যাশিত ফলও পেয়েছেন, হয়েছেন সহসভাপতি। নির্বাচনের ধকলে শরীর অনেকটাই ভেঙে পড়েছে। আড্ডার শুরুতেই বললেন সে কথা, ‘দুই দিন ধরে অসুস্থ। তবে কথা বলতে সমস্যা নেই। নির্বাচনের ফল প্রকাশের পর সহকর্মীদের অনেকেই ফোন করে বলছেন, আমি নির্বাচিত না হলে তাঁরা কষ্ট পেতেন। বড়-ছোট সব সদস্যের কাছেই ভোট চেয়েছি। নতুন প্রজন্মের শিল্পীদের সঙ্গে পরিচিত হয়েছি। নির্বাচন করতে গিয়ে সহকর্মীদের সবাইকে পাশে পেয়েছি।

ভেবে ভালো লাগছে, সহকর্মীরা আমাকে ভালোবাসে। তাদের প্রতি ভালোবাসা এবং কৃতজ্ঞতা। ’

নির্বাচনের হাওয়া তো শেষ। অভিনয়ের কী খবর? ‘আসলে অনেক কারণেই অভিনয় থেকে দূরে আছি। নাটকের সুসময়টা  আর নেই। ভালো চিত্রনাট্য থেকে শুরু করে মাত্রাতিরিক্ত বিজ্ঞাপনের যন্ত্রণা—অনেক সমস্যা। এসব কারণে অভিনয় কম করি। আমরা তো সিনিয়র, কিছু দায়িত্ববোধ আছে, যা ইচ্ছে তাই করতে পারি না। দেখা যায় একটা ধারাবাহিক শুরু করলাম। প্রথম কয়েকটা পর্বে চরিত্রটা ঠিকঠাক থাকে। তারপর গল্প কোথা থেকে কোথা যাচ্ছে বুঝতে পারি না। আর আজকাল তো স্ক্রিপ্টও হাতে পাই না। আগে আমরা বাসায় সংলাপ মুখস্থ করে সেটে আসতাম, পরে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতাম। এখন এত কষ্ট করতে চায় না কেউ। সব শর্টকাট হয়ে গেছে। সে কারণেই দর্শক টিভি নাটক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।      শিল্প-সংস্কৃতি শর্টকাটে হয় না। গল্প যদি খুব ভালো লেগে যায়, তাহলে অভিনয় করি’—বললেন সুইটি। টিভিতে এখন সুইটি অভিনীত

একটি ধারাবাহিকই চলছে—           ‘হাউসওয়াইভস’।

অভিনয় নিয়ে তাহলে সুইটির প্ল্যান কী? ‘অভিনয় করতে চাই। সংসারের সব ব্যস্ততা কাটিয়েও অভিনয়ে নিয়মিত হতে চাই, কিন্তু গা ভাসিয়ে নয়। ভালো গল্প ভাবনা থাকতে হবে—সেটা ধারাবাহিক হোক কিংবা একক। শিল্পটা তার মতো করে চর্চা করতে হবে। আগে ব্যবসা নয়, শিল্প হিসেবে দেখতে হবে। তাহলেই উন্নতি সম্ভব। নইলে অবস্থা আরো খারাপ হবে। তার ওপর বিদেশি চ্যানেলের প্রভাব আছেই। শেষ কথা, আমি অভিনয়েরই মানুষ, এখানেই থাকতে চাই’—বললেন সুইটি।  

ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন মডেলিংয়ের মাধ্যমে। পরে    মডেলিং-অভিনয় দুটোই একসঙ্গে চালিয়ে নিয়েছেন। সম্প্রতি  প্রায় সাত বছর পর বিজ্ঞাপনচিত্রের মডেল হলেন। একটি প্লাস্টিক পণ্য বিজ্ঞাপনের শুটিং শেষ করেছেন। সুইটি বলেন, ‘কিছুদিন আগে গাজীপুরে শুটিং করেছি। এটি একটি গল্পপ্রধান বিজ্ঞাপনচিত্র। সবচেয়ে ভালো লেগেছে স্ক্রিপ্ট। আর  বিজ্ঞাপনটিও মেয়েদের নিয়ে, তাই করেছি। ’


মন্তব্য