kalerkantho


নায়িকা স্পর্শিয়া

বছরের শুরুতেই চলচ্চিত্রে নাম লিখিয়েছেন। নেপালে অনন্য মামুনের ‘বন্ধন’-এর কিছু অংশের শুটিং করে দেশে ফিরেছেন। অর্চিতা স্পর্শিয়াকে নিয়ে লিখেছেন মীর রাকিব হাসান

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০




নায়িকা

স্পর্শিয়া

নেপাল থেকে ফিরেই পড়লেন জ্বরে। ডাক্তার বিভিন্ন টেস্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন, বেশি দিন আর বিছানায় পড়ে থাকতে হবে না।

জ্বর নিয়েই হাজির হয়েছেন কণ্ঠশিল্পী পূজার বিয়েতে। একটা নাটকের শুটিংও করলেন। আগেই শিডিউল দেওয়া ছিল, তাই শুটিং না করে উপায় ছিল না।

নেপালে শুটিংয়ের কারণেই কি জ্বর এলো? শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা কি খুব খারাপ ছিল? ‘ভয়াবহ অভিজ্ঞতা। গানগুলোর শুটিং হয়েছে নাগরকোটে। অসম্ভব ঠাণ্ডা, সেখানে তাপমাত্রা মাইনাস টু পর্যন্ত নেমেছে। এত দিন দেখেছি নায়িকারা ছোট পোশাক পরে বরফের মধ্যে নাচে। কষ্টকর মনে হতো না। এবার শিক্ষা হলো।

প্রচণ্ড শীতে নাক দিয়ে রক্ত পর্যন্ত পড়েছে। প্রতিদিন ভোর ৪টায় উঠেছি, ৭টার মধ্যে রেডি হয়ে স্পটে হাজির হয়েছি। আনন্দও করেছি। মাঝখানে দুই দিন শুটিং ছিল না। খুবই সুন্দর জায়গা। ঘুরে দেখেছি সবটা। ট্র্যাকিং করেছি’, বললেন স্পর্শিয়া।

পাঁচ বছর আগেই সিনেমায় অভিনয়ের প্রস্তাব পেয়েছিলেন অনন্য মামুনের কাছ থেকে। তখন সাহস হয়নি। অভিনয়ে সবে যাত্রা শুরু, বয়সটাও ছিল কম [মাত্র ১৬]। গত বছরের শেষের দিকে আবারও প্রস্তাব দিলেন মামুন। এবার আর ‘না’ করেননি। ‘সিনেমা, তাও আবার নাচ-গানে ভরপুর। ভয়ে তো ছিলামই। প্রথম দিকে প্রতিটা শট দিয়ে এসে মনিটরে দেখতাম। ইউনিটের সবার কাছে জিজ্ঞেস করতাম কেমন হয়েছে। ডায়ালগ থ্রোয়িং তো টিভি নাটক থেকে অনেকটাই ভিন্ন। প্রথম দিকে মানিয়ে নিতে কষ্ট হলেও এখন বুঝে ফেলেছি। টিমটাও অনেক ফ্রেন্ডলি। পরিচালক থেকে শুরু করে অ্যাসিস্ট্যান্ট, সহশিল্পীরাও বেশ হেল্পফুল। আগে শুনতাম সিনেমায় নাকি এই হয়, সেই হয়। এই টিমের সঙ্গে কাজ করে আমার ভুল ভেঙেছে’, বললেন স্পর্শিয়া।

ছবিটির শতকরা ৫০ ভাগ শুটিং শেষ। মার্চে আবার দেশের বাইরে যাবেন শুটিংয়ে। এর আগে দেশে কিছুদিন শুটিং হবে। সামনে দুটি চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন স্পর্শিয়া। তবে ছবির নাম বলতে চান না।  

চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন, নাটকে কি তাহলে নিয়মিত দেখা যাবে? স্পর্শিয়া বলেন, ‘সাত বছর ধরে টিভি নাটক করছি। এখানেই আমার অভিনয়ে হাতেখড়ি। যেভাবে এত দিন করেছি, এখনো সেভাবেই করব। আমি আসলে প্ল্যান করে কোনো কিছু করি না। নাটক-চলচ্চিত্র সবই করব। ’

সম্প্রতি নাহিদ মেহেদীর গান ‘হারালো অজানায়’-এর ভিডিওতে মডেল হয়েছেন তৌসিফ মাহবুবের সঙ্গে। এ মাসেই ইউটিউবে প্রকাশ পেয়েছে ভিডিওটি। ভালো সাড়া পাচ্ছেন স্পর্শিয়া। ‘সিলেটে দুই দিন গানটির শুটিং করেছি। আসলে এটাকে মিউজিক্যাল ফিল্ম বলব। এখানে দারুণ একটা হৃদয়স্পর্শী গল্প আছে। শুটিংয়ের অভিজ্ঞতাও ছিল রোমাঞ্চকর। একটা দৃশ্যে তৌসিফ পাহাড় থেকে পড়ে যায়, সাহস নিয়ে দৃশ্যটা করেছে ও। এই পরিশ্রমের ফলাফলও আমরা পাচ্ছি। দারুণ প্রশংসিত হয়েছে ভিডিওটি’, বললেন স্পর্শিয়া। গত বছর ভারতীয় গায়ক পাপনের বাংলা গান ‘মন দরিয়া’র ভিডিওতেও মডেল হয়েছিলেন। ইউটিউবে এ পর্যন্ত ২০ লক্ষবার দেখা হয়েছে ভিডিওটি।

নাটকও লেখেন। স্বামী রাফসানের সঙ্গে নির্মাণে নামার ঘোষণাও দিয়েছিলেন। সেসবের খবর কী? ‘লেখালেখি তো নিয়মিতই করছি। নেপাল বসেও একটা শর্টফিল্মের গল্প লিখেছি। আর রাফসানের সঙ্গে যে প্ল্যানটা করেছিলাম, সেটা আপাতত অফ রাখছি। ওর অন্য ব্যস্ততা আছে, আমারও সিনেমার শুটিং শুরু হয়ে গেল। আরো অনেককেই ডেট দেওয়া। অন্যদের কাজ শেষ করে নিজেদেরটা আর ধরা হয় না। ’


মন্তব্য