kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডিলান কেন নোবেল পেলেন?

ডিলানের নোবেল প্রাপ্তিতে নাখোশও হয়েছেন অনেকে। তাঁরা ডিলানের গানের ভক্ত কিন্তু তাতে যথেষ্ট সাহিত্যগুণ খুঁজে পান না। আপরক্স ডটকমের সারাহ র‍্যাবিটস তাঁর সাতটি গানের কথা মনে করিয়ে দিচ্ছেন যেগুলো সাহিত্যমানে আকাশ ছুঁয়েছে। বাংলা করেছেন আবু সালেহ শফিক

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



১. লিলি, রোজমেরি অ্যান্ড দ্য জ্যাক অব হার্টস

১৯৭৫ সালে প্রকাশিত ‘ব্লাড অন দ্য ট্র্যাকস’ অ্যালবামের গান এটি। দৈর্ঘ্য ৯ মিনিট।

গানটিতে তিনি একটি শহরের গল্প বলেছেন, যেটিকে ভালো মানুষেরা পরিত্যাগ করেছেন। এ শহরের একজন আগন্তুক জ্যাক অব হার্টস। ক্যাবারে ডান্সার লিলির সঙ্গ পেতে চায়। বিগ জিম নামের আরেকজনও চায় লিলির মন পেতে। জিমের স্ত্রী রোজমেরি চায় প্রতারণার প্রতিশোধ নিতে। ভালোবাসা, নৈতিকতা এবং রহস্যের মিশেলে একটি দারুণ গল্প। গল্পটি আবার ‘হইয়াও হইল না শেষ’ গোছের। রোজমেরির হাতে জিমের মৃত্যু হলেও জ্যাক অব হার্টসের পরিণতি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে শ্রোতাদের হাতে।

২. ভিশনস অব জোহানা

১৯৬৬ সালে প্রকাশিত ‘ব্লন্ড অন ব্লন্ড’ অ্যালবামের গান। গানটির প্রথম দুটি বাক্য এমন—‘চাইছিলে খুব চুপ থাকতে যে রাতে, সেই রাতটিই ভেলকি দেখিয়ে নিল যেমন এখানে বন্দি বসে আছি অথচ চাইছি না মোটেই। ’ গানটি নিঃসঙ্গতার কথা বলে, ভালোবাসা হারিয়ে যাওয়ায় আক্ষেপ করে। অতীত মানুষের সঙ্গী থাকে ছায়ার মতোই—চিন্তার দারুণ প্রকাশ এই গানটিতে।

৩. ট্যাঙ্গেলড আপ ইন ব্লু

‘ব্লাড অন দ্য ট্র্যাকস’-এর আরেকটি গান। ভালোবাসা, ক্ষয় আর অনিশ্চয়তা এ গানের বিষয়। ডিলান যুবক বয়সের দিনগুলোর কথা বলছেন এ গানে। তিনি অবাক হন ভেবে, সেই মানুষগুলো যাদের চিনতাম ভালো করে, আজ মনে হয় ঝাপসা। গানটির মর্মস্পর্শী একটি বাক্য এমন—‘আবার আমরা মিলব একদিন সেই রাস্তায় যেটি গভীর নীলে মাখামাখি হয়ে আছে। ’

৪. হারিকেন

১৯৭৬ সালে প্রকাশিত ‘ডিজায়ার’ অ্যালবামের প্রথম গান। কানাডীয় রুবিন কার্টারের মিছামিছি ফেঁসে যাওয়া নিয়ে একটি হৃদয়ছোঁয়া গল্প-গান এটি।

৫. ডোন্ট থিংক টোয়াইস, ইটস অল রাইট

১৯৬৩ সালে প্রকাশিত ‘দ্য ফ্রিহুইলিং বব ডিলান’ অ্যালবামের গান। আশা জাগানোর, ভালো লাগানোর গান এটি। ‘যদিও তুমি ছিলে শুধুই সময়ের অপচয়, তবুও ধরে নিয়েছি সব ঠিকই আছে’—গানটির শেষ বাক্যগুলো এমন। পৃথিবীর সব আহত প্রেমিক-প্রেমিকার জন্য গানটি মলমবিশেষ। আবার সব ঠিক হয়ে যাওয়ার আশা জোগান দিয়েছেন এ গানে।

৬. ইডিয়ট উইন্ড

‘ব্লাড অন দ্য ট্র্যাকস’ অ্যালবামের আরেকটি গান। গানের কথা সোজা কিন্তু মেজাজ খুব চড়া। একটি বাক্য শুনলেই পরিষ্কার হয়—‘বোকা বাতাস যেদিকে ধায় সেদিকেই যাও তুমি, তুমি আসলে বোকা। ’ 

৭. ব্যালাড অব আ থিন ম্যান

১৯৬৫ সালে প্রকাশিত ‘হাইওয়ে ৬১ রিভিজিটেড’ অ্যালবামের গান। অদ্ভুত বিষয় নিয়ে অদ্ভুত গান। অনেকে অনেকভাবে বোঝার চেষ্টা করেছে গানটি। এখনো অনেকে অনেকভাবে মানে খুঁজে বেড়ান এ গানের।


মন্তব্য