kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অন্তরে অভিনয়

বেশ কয়েকটি একক ও ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেছেন। ভালো অফার পেলে চলচ্চিত্রেও অভিনয় করবেন। অন্তরা আজিমকে নিয়ে লিখেছেন সাইমুম সাদ, ছবি তুলেছেন ওমর ফারুক টিটু

৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



অন্তরে অভিনয়

তাঁর মা টিভি সিরিয়ালের ভক্ত। মায়ের দেখাদেখি অন্তরাও টিভি সিরিয়ালে আসক্ত হয়ে পড়েন।

অভিনয়ের প্রতি আগ্রহ তখন থেকেই। আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে মুখস্থ সংলাপ আওড়াতেন। কল্পনায় দু-একবার নায়কের গালে কষে থাপ্পড়ও নাকি মেরেছিলেন। মেয়ের এসব কাণ্ড দেখে মা তো হেসেই খুন! মেয়েকে বকাঝকা করেননি কখনো, বরং আসকারাই দিয়েছেন। মেয়ে অভিনয়শিল্পী হলে ক্ষতি কী! সিরিয়ালে নিজের মেয়েকে দেখা যাবে। তবে সিরিয়ালের প্রতি অন্তরার মোহটা বেশি দিন থাকেনি। খালি স্থান পূরণ করলেন বলিউড তারকা সালমান খান।

সালমানের পোস্টারে ভর্তি তাঁর পড়ার রুমটা। আর ড্রয়িং রুম, বুকশেলফজুড়ে ছড়ানো পেপার কাটিংয়ে। সেই স্কুল লাইফ থেকে শুরু। এখনো চলছে পাগলামি। সালমানকে ঘিরে প্রকাশিত বই আছে তাঁর সংগ্রহে। প্রিয় নায়কের জন্মদিনও পালন করেন বেশ ঘটা করে। ‘আমি সালমান খানকে ভালোবাসি। তাঁর পার্সোনালিটি খুব ভালো লাগে’, বললেন অন্তরা।

দেশীয় অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে তিশা, অপি করিম, মিথিলার অভিনয় ভালো লাগে তাঁর। অভিনয়ের মানুষদের নিয়ে পাগলামি করতে গিয়ে অভিনয়টাকেও ভালোবেসে ফেলেছেন। পড়তেন ভিকারুন নিসায়। স্কুল থিয়েটারে টুকটাক অভিনয় করেছেন। তবে পরিচিতির গণ্ডিটা বাড়তে থাকে কলেজে ওঠার পর। বেশ কিছু ছবি ছাপা হয়েছিল দৈনিক পত্রিকার ফ্যাশন বিষয়ক পেইজগুলোতে। সেই ছবি দেখেই তাঁকে কল করেন বিজ্ঞাপন নির্মাতা আদনান আল রাজীব। বাংলালিংকের একটি বিজ্ঞাপনে সুযোগ পেলেন। আলোচিত বিজ্ঞাপনটিতে প্রশংসিত হয় অন্তরার উপস্থিতি। তবে পর্দায় নিজেকে খুব মোটা মনে হয়েছে অন্তরার। তারপর? ‘নিজেকে একটু টাইম দিলাম। ডায়েট করলাম। ওজন কমালাম’, বললেন অন্তরা।

মাঝে পড়াশোনার ব্যস্ততায় কেটে গেল দুই বছর। এ বছরের শুরুতে ফিরলেন, মডেলিং নয় এবার অভিনয়ে। অভিনয় করেছেন ‘লেক ড্রাইভ লেন’, ‘ব্যাক বেঞ্চারস’, ‘কম-ইউনিটি’সহ বেশ কয়েকটি সিরিয়ালে। কোরবানির ঈদে প্রচারিত হয় বেশ কয়েকটি নাটক—‘ট্যাটু’, ‘ভিডিও’, ‘ইটস মাই লাভ স্টোরি’ ও ‘কেন এই বিষণ্নতা’।

আছে বড় পর্দায় অভিনয়ের ইচ্ছেও। অন্তরা বললেন, “ভালো মানের সিনেমা পেলে অবশ্যই করব। যেমন ‘আয়নাবাজি’। ছবিটি নিয়ে ফেসবুকে প্রচুর লেখালেখি চলছে। এ ধরনের সিনেমা হলে অবশ্যই করব। ”


মন্তব্য