kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তাতিয়ানার পাঁচ রূপ

‘অরফান ব্ল্যাক’-এ একাই পাঁচটি ক্লোন চরিত্রে অভিনয় করে নজর কাড়েন তাতিয়ানা মাসলানি। এবারের ‘এমি অ্যাওয়ার্ডস’-এ হয়েছেন সেরা অভিনেত্রী। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন খালিদ জামিল

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



তাতিয়ানার পাঁচ রূপ

কানাডিয়ান অভিনেত্রী তাতিয়ানা মাসলানি। তবে শরীরে আছে অস্ট্রিয়ান, জার্মান, পোলিশ, রোমানিয়ান এমনকি ইউক্রেনিয়ান রক্তও।

অর্থাৎ, বংশগত দিক থেকে গোটা পূর্ব ইউরোপের প্রতিনিধি তিনি। সেই সঙ্গে ভাষাগত দক্ষতায়ও রয়েছে বৈচিত্র্য। কাঠমিস্ত্রি বাবার এই কন্যার মা ছিলেন অনুবাদক। দাদা-দাদি কথা বলতেন জার্মান ভাষায়। সেই সুবাদেই ইংরেজির আগেই অনর্গল বলতে শেখেন ফরাসি আর জার্মান।

তাতিয়ানা স্যান্ডউইচ খুব ভালোবাসেন। শুটিংয়ের ফাঁকে ফাঁকে এই খাবারটাই চিবোতে দেখা যায় তাঁকে। বন্ধুরা তো মজা করে এও বলে যে যত কঠিন চরিত্রই হোক স্যান্ডউইচ হাতে পেলে তাতিয়ানা তা অনায়াসে উতরে যাবে! তাই বলে কাজে মোটেও অমনোযোগী নন। বরং কোনো একটি চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে সেটার মধ্যেই ঢুকে পড়েন। যেমন সায়েন্স ফিকশন টিভি সিরিজ ‘অরফান ব্ল্যাক’-এ সারাহ নামক নিম্নবিত্ত এক নারীর ভূমিকায় অভিনয় করার সময় ব্যক্তিগত জীবনেও সে ধরনের ব্রিটিশ ইংরেজিতেই কথা বলেছেন বেশ কিছুদিন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘একই সঙ্গে কয়েকটি ভূমিকায় কাজ করার সময় আমার সমস্যা হয়। মাঝেমধ্যে ব্যাপারটা শরীরেও প্রভাব ফেলে। এ জন্য পারতপক্ষে একসঙ্গে একটির বেশি কাজ হাতে নিই না আমি। ’ যদিও ‘অরফান ব্ল্যাক’ সিরিজেই এমন কাণ্ড করতে হয়েছে। এই সিরিজেই একসঙ্গে অনেক চরিত্রে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। এর প্রথম দুই সিজনের শুটিং চলাকালে রাতে ঘুমাতে পারেননি তাতিয়ানা।  

অভিনয়কে এভাবে বাস্তব জীবনের সঙ্গে মিলিয়ে ফেলা নিয়ে তাতিয়ানার অনেক গল্প আছে। একবার পার্টিতে বমি করে ফেললেন। কিন্তু অভিনয় করলেন এমনভাবে যেন কিছুই হয়নি। মজার ব্যাপার হচ্ছে, তাঁর আশপাশের মানুষও সেটাই বিশ্বাস করেছিলেন। অথচ সেদিন তাঁর শরীর বেশ খারাপ ছিল। কোনোমতে পার্টি থেকে ফিরেই শয্যাশায়ী হয়েছিলেন।

তরুণ এই অভিনেত্রী সম্পর্কে এখন চালু প্রবাদ—তিনি গাছের ভূমিকায় অভিনয় করলে সেটাও নাকি জীবন্ত হয়ে ওঠে। এক আমেরিকান গণমাধ্যম তাঁর চরিত্রের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপারটি বর্ণনা করতে গিয়ে লিখেছিল, ‘কোনো খাদ্য বা পানীয় গ্রহণের আগে নিশ্চিত হয়ে নিন সেটা আসলেই খাবার নাকি সেটার ভূমিকায় তাতিয়ানা অভিনয় করছেন!’

অভিনয়ের সঙ্গে নিজেকে যিনি এভাবে জড়িয়ে ফেলেছেন সেই তাতিয়ানা কাজের বড় স্বীকৃতি পাবেন এটাই স্বাভাবিক। হিসাব করে দেখা গেছে, চলচ্চিত্র ও টিভি সিরিজ মিলিয়ে তাঁর অভিনীত অংশগুলো যদি কেউ দেখতে বসে তাহলে শেষ করতে সময় লাগবে এক লাখ ঘণ্টার কিছু বেশি। ১৯৯৫ সালে অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করা তাতিয়ানা তাঁর কাজের  স্বীকৃতির মধ্যে সবচেয়ে বড়টি পেলেন এবার। ‘অরফান ব্ল্যাক’ টিভি সিরিজে অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রী হিসেবে জিতে নিয়েছেন ৬৮তম এমি অ্যাওয়ার্ড [ড্রামা]।

‘অরফান ব্ল্যাক’ সিরিজটিতে তিনি অভিনয় করেছেন পাঁচটি চরিত্রে। প্রত্যেকেরই রয়েছে আলাদা কিছু বৈশিষ্ট্য।


মন্তব্য