kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কার ছবি কার হাতে

মৌসুমীর বদলে পপি

পারিশ্রমিক, শিডিউল, চিত্রনাট্য, মান-অভিমান, ব্যক্তিগত পছন্দ-অপছন্দ—কত কারণেই না ছবি ছেড়ে দেন প্রতিষ্ঠিত নায়ক-নায়িকারা! সুযোগ পেয়ে যায় নতুন কেউ, খুলে যায় ভাগ্য, জন্ম নেয় নতুন কোনো তারকা। এমনই কিছু ছবি আর নায়ক-নায়িকার গল্প নিয়ে ধারাবাহিক এই আয়োজন। আজ থাকছে মৌসুমীর জায়গায় সুযোগ পেয়ে পপির তারকা হওয়ার কথা

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মৌসুমীর বদলে পপি

‘কুলি’ ছবির দৃশ্য

ওমর সানী-মৌসুমীকে নিয়ে ‘কুলি’ বানাতে চেয়েছেন মনতাজুৎর রহমান আকবর। তাঁদের সঙ্গে কথাও একপ্রকার পাকা।

কিন্তু প্রযোজক সিদ্দিক ও খাজা বললেন, ‘ছবি প্রযোজনা করতে পারি। তবে নায়িকা নিতে হবে আমাদের পছন্দে। আমরা আনন্দ বিচিত্রা ফটো সুন্দরীকে নিয়ে ছবি তৈরি করতে চাই। ’ এফডিসির ৩ নম্বর ফ্লোরে আকবরের সঙ্গে দেখা করলেন পপি। লম্বা-চওড়া পপিকে দেখে আকবরের ভালো লাগল। এদিকে ওমর সানী বেঁকে বসলেন। তাঁকে বোঝালেন আকবর। শুরু হলো শুটিং। প্রথম দৃশ্যে মাথায় স্যুটকেস নিয়ে বাসায় ঢুকবে ওমর সানী। সেটা দেখে হাসতে হাসতে পপি বলবে, ‘তোমাকে না কুলির মতো লাগছে। ’ সব ঠিকঠাক, কিন্তু এই সামান্য সংলাপটুকু পপি আর বলতে পারলেন না। এক দুই তিনবার, এভাবে প্রায় ১০০ টেক হলো, কিন্তু শট ‘ওকে’ হলো না। সানী রেগে আকবরকে বললেন, ‘আগে ওকে তৈরি করেন, তারপর শুটিং। এভাবে কাজ করতে পারব না। ’ রেগে গেলেন আকবরও। শুটিং প্যাকআপ করে চলে গেলেন বাসায়। আট দিন পর প্রযোজক এসে বললেন, ‘আমরা মেয়েটির কাছে প্রতীজ্ঞাবদ্ধ। ছবিটা ওকে দিয়েই করাতে হবে। দরকার পড়লে পরের ছবিতে অন্য নায়িকা নেব। ভাই, আপনি একটু দেখেন না!’

আকবর খোঁজ লাগালেন প্রযোজকরা কেন পপির প্রতি এত দুর্বল। পরে ফটোগ্রাফার ফিরোজ জানালেন, এর আগে প্রযোজকরা পপিকে নিয়ে সোহানুর রহমান সোহান, শিবলী সাদিকের মতো পরিচালকদের কাছেও গেছেন। তাঁরা মুখের ওপর ‘না’ করে দিয়েছেন। এবার চ্যালেঞ্জ নিলেন আকবর, যে করেই হোক পপিকে তারকা বানাবেন। নিজেই গ্রুমিং করালেন। এক মাস পর আবার শুটিং। এবার আর ঝামেলা হয়নি। মুক্তির পর রাতারাতি তারকা পপি!

মনতাজুর রহমান আকবরের সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন দীপ কুমার


মন্তব্য