kalerkantho

26th march banner

পাস্তাটা ভালোই হয় আমার

কারিনা কাপুর খান বলিউডের প্রথম সারির নায়িকাদের একজন। তবে নিজেকে সাধারণ একজন মানুষই মনে করেন। দিন শেষে যখন ঘরে ফেরেন, তখন তিনি পরিবারের একজন সদস্য। এই অভিনেত্রীর সাক্ষাত্কার প্রকাশিত হয়েছে ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’য়। চুম্বক অংশগুলো নিয়ে লিখেছেন খালিদ জামিল

৩১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পাস্তাটা ভালোই হয় আমার

কারিনা বসার ঘরটা সাজিয়েছেন চমৎকার এক কাঠের টেবিল, হলিউড পোস্টার, ছবি ও চামড়ার সোফা দিয়ে। ঘরটায় মাঝেমধ্যে কেমন জানি গা শিরশির করা একটা অনুভূতি হয়। বিভিন্ন ধরনের পোশাকে সজ্জিত তাকটি ঘরের এক কোনায়। একসময় ঘরে প্রবেশ করেন তিনি। শুরু হয় আড্ডা। কথা হয় তাঁর নতুন ছবি ‘কি অ্যান্ড কা’, বাদ পড়েনি বিয়ের আগে ও পরের জীবনও।

সাধারণত ছবি বাছাই করেন কিভাবে?

অভিনয়ের ক্ষমতাটা সম্ভবত জন্মগতভাবেই পেয়েছি। যখন মনে হয়, কোনো ছবিতে আমার জন্য বিশেষ কিছু আছে তখন ওই ছবিতে অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলি। এই ধরুন না, ‘কি অ্যান্ড কা’ ছবির কথাই বলি। বাল্কি স্যার যখন এটার চিত্রনাট্য পড়ছিলেন, অর্ধেকটা শুনেই বলে দিই, এতে অভিনয় করব। এই ছবির ‘কিয়া’ চরিত্রটি মূলত একজন আধুনিক, স্বাধীন, বহির্মুখী ও কর্মমুখী নারীর জীবন নিয়ে তৈরি। আমার সঙ্গে বেশ মিলে গেছে বলতে পারেন।

কিন্তু বিয়ের পর আপনাকে তো তেমন একটা ‘কর্মমুখী’ মনে হচ্ছে না।

এখন আসলে ভালো ছবির জন্য অপেক্ষা করছি। তা ছাড়া বিবাহিত জীবনটা একটু গুছিয়ে নিচ্ছি। তাই ১৫ বছরের অভিনয়জীবনে এই প্রথম কাজকর্ম খানিকটা ইচ্ছা করেই কমিয়ে দিয়েছি। স্বামী-সংসারে সময় দিচ্ছি। কাজের ব্যাপারে আমার স্বামী বেশ সাহায্য করে। আমরা দুজনেই বিয়ের পর মেয়েদের কাজ ছেড়ে দেওয়ার বিষয়ে ঘোর বিরোধী।

যদি কোনো ছবির গল্প ভালো লেগে যায় তবেই কাজ করছি। এখন ‘দ্য ডেনিশ গার্ল’ ছবির ইয়েডা উয়িজেনার কিংবা ‘জয়’ ছবির জয় ম্যাঙ্গানোর মতো চরিত্রে অভিনয় করতে চাই।

‘মাসান’র মতো ছবিতে অভিনয় করার কথা ভাবেন?

আগেই বলেছি, যে ধরনের কাজ ভালোবাসি তেমন কাজের প্রস্তাব পেলে অবশ্যই করব। এমনকি ‘গোলমাল-৪’র মতো ছবিতেও কাজ করব, যদি খুব ভালো কোনো চরিত্র পাই।

ক্যারিয়ারের অনেক খারাপ সময়ও তো পার করেছেন?

স্বাভাবিক। অনেকে মনে করেন, কাপুর পরিবারের মেয়ে হওয়ায় সহজেই সফলতা পেয়েছি। কিন্তু এমনও সময় গেছে, যখন আমার ১০-১২টা ছবি ফ্লপ হয়েছে। আমাকে খরচের খাতাতেই ফেলা হয়েছিল।

প্রতিটি সফল পুরুষের পেছনে একজন নারীর অবদান থাকে। প্রতিটি সফল নারীর পেছনেও কি একজন নারীর অবদান থাকে?

অবশ্যই। অন্তত আমার ক্ষেত্রে তেমনটাই সত্য। আমার মা এবং বোন শুরু থেকেই আমার পাশে ছিলেন। তাঁদের জন্যই আজ আমি ‘কারিনা’ হতে পেরেছি।

‘কি অ্যান্ড কা’ ছবিতে আপনি রাঁধতে পারেন না। বাস্তব জীবনে কি তা পারেন?

রান্নাটা মোটামুটি পারি। পাস্তাটা ভালোই হয় আমার।

সাইফ বলেন, তিনিও ভালো রাঁধতে পারেন...

এই বিষয়টা নিয়ে বেশি কথা না বলাটাই বোধ হয় ভালো। সাইফ নিজে মনে করে, রান্নাটা ও জানে। কিন্তু মনে হয় না, একটা ডিমও সে ঠিকভাবে সিদ্ধ করতে পারবে। আর এখন যেহেতু হাতে সময় আছে, রান্নাটা শিখে ফেলতে চাই।


মন্তব্য