kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বাজি ধরেছেন মাহি

শাকিব খান, আরিফিন শুভ ও বাপ্পী চৌধুরী—প্রথম সারির এই তিন নায়কের সঙ্গে আপাতত অভিনয় না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। পছন্দের পাঁচ পরিচালক ছাড়া আর কারো ছবিতেই অভিনয় করবেন না। এমন সিদ্ধান্ত কেন নিয়েছেন মাহিয়া মাহি? লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ।ছবি তুলেছেন শামছুল হক রিপন

২৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বাজি ধরেছেন মাহি

কয়েক মাস ধরে অভিনয়ে খুব একটা ব্যস্ততা নেই। আজ ময়মনসিংহ তো কাল কক্সবাজার ঘুরে বেড়াচ্ছেন। কখনো আবার বাসায় বন্ধুবান্ধবদের ডেকে এনে আড্ডা জমিয়ে তোলেন। হাতে আছে একটি মাত্র ছবি—দীপংকর দীপনের ‘ঢাকা অ্যাটাক’। ছবির ৭০ শতাংশ শুটিং শেষ। শিডিউল মতো কাজ হলে আগামী মাসেই শেষ হয়ে যাবে।

কিন্তু এরপর?

নতুন কোনো ছবিই চূড়ান্ত হয়নি এখনো। তাহলে কি বসে থাকবেন? এমন প্রশ্নের মুখে মাহির সহজ-সরল উত্তর, ‘সময়ের অপেক্ষায় আছি। মনের মতো পরিচালক এবং গল্প না হলে কাজ করব না। বছরে একটি ছবি করব। সেটাও না হলে দুই বছরে একটি। তবুও পরিকল্পনার বাইরে যাব না। ’

আসলে মাহির পরিকল্পনাটি কী! একের পর এক ছবির প্রস্তাব হাতে আসছে। বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলোও টাকা নিয়ে বসে আছে মাহিকে কাস্ট করার জন্য। জনপ্রিয় নায়করাও তাঁদের ছবিতে মাহিকে নেওয়ার জন্য প্রযোজক-পরিচালকদের অনুরোধ করছেন। সেখানে কিসের অপেক্ষা! ‘আমি বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এই মুহূর্তে পাঁচজন পরিচালকের বাইরে কাজ করব না। বদিউল আলম খোকন, মালেক আফসারী, জাকির হোসেন রাজু, শাহীন-সুমন ও ইফতেখার চৌধুরীদের কাছ থেকে প্রস্তাব পাওয়ার অপেক্ষায় আছি। আমার মনে হয়, তাঁরাই মাহিকে সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারবেন। তাঁদের ছবির জন্য দরকার পড়লে খোলা শিডিউল দেব। ’

নায়কদের নিয়েও ভাবছেন। শাকিব খান, আরিফিন শুভ এবং বাপ্পীদের সঙ্গে এখনই কাজ করতে চান না। বরং তাঁদের জায়গায় নতুন নায়ক হলে আগ্রহটা বেশি।

যুক্তিটা কী?

‘শাকিব-শুভ-বাপ্পী—এদের ছবিতে নায়িকাদের অভিনয়ের সুযোগ খুব একটা থাকে না। দুই-তিনটি গান আর স্বল্প পোশাকে কিছু দৃশ্য থাকে। আমার এতে পোষাচ্ছে না। অন্তত দুই বছর এই সিদ্ধান্তে অনড় থাকব’, বললেন মাহি।

তাহলে কী ধরনের ছবি করতে চাইছেন মাহি? ‘ছবির গল্প আমাকে কেন্দ্র করে হতে হবে। সেটা রোমান্টিক, সামাজিক কিংবা অ্যাকশন ঘরানার হলেও সমস্যা নেই’, বললেন মাহি।

সম্প্রতি কয়েকজন সিনিয়র পরিচালককে ফিরিয়ে দিয়েছেন। ফিরিয়েছেন শাকিব খানের সঙ্গে কাজ করার একাধিক প্রস্তাবও। খবরটা এখন বেশির ভাগ কলাকুশলীর মুখে মুখে। এতে করে অনেকে এখন দুই দলে বিভক্ত হয়েছে। একদল অবস্থান নিয়েছে মাহির পক্ষে, আবার আরেক দল বিপক্ষে। পক্ষের দল বলছে, মাহির সিদ্ধান্তই সঠিক। নাম ভূমিকায় অভিনয় করে ‘অগ্নি’ ও ‘অগ্নি-২’ উপহার দিয়েছেন। দুটি ছবিই ব্যবসাসফল। সত্যি বলতে শাকিব খানের পরে এখন ইন্ডাস্ট্রির সুপারস্টার তিনিই। বিপক্ষ দল বলছে, বাংলাদেশে এখনো নায়কপ্রধান ছবির দর্শক বেশি। হয়তো মাহির দুটি ছবি ব্যবসা করেছে। কিন্তু এর মানে প্রতিটি ছবিই ব্যবসা করবে, এর গ্যারান্টি নেই। এমন সিদ্ধান্ত মাহির জন্য আত্মঘাতী হবে। এসব মাহির কানেও এসেছে। ‘আমি ক্যারিয়ার নিয়ে মোটেও চিন্তিত নই। যা হওয়ার হবে। ২০ বছর পরও যেন বলতে পারি আমি অমুক অমুক ছবিতে অভিনয় করেছি। দর্শক ছবির নামের আগে যেন বলে মাহির ছবি। হোক না সেটা সংখ্যায় ১০টি। এতেই খুশি আমি’, বললেন মাহি।

মাহি অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি মেহের আফরোজ শাওনের ‘কৃষ্ণপক্ষ’। ছবিটিকে ক্যারিয়ারের জন্য ‘লক্ষ্মী’ মনে করছেন মাহি। অনেক প্রতিকূলতার মধ্যেও দর্শকরা ছবিটি দেখেছে। মুক্তির চার সপ্তাহের মাথায় এখনো ১০টি হলে চলছে। এতে করে বেশ খুশি তিনি। বলেন, “‘অগ্নি’ আর ‘কৃষ্ণপক্ষ’—এ দুটির মধ্যে বিস্তর ফারাক। একটি বাণিজ্যিক ঘরানার মসলা ছবি, অন্যটি সাহিত্যপ্রধান। দর্শক দুই প্লটেই আমাকে গ্রহণ করেছে। এখন নিজেকে নিয়ে বাজি ধরতেই পারি। শুধু নায়কপ্রধান ছবি নয়, এখন থেকে নায়িকাপ্রধান ছবিও নির্মিত হবে নিয়মিত। সেই আশাতেই রইলাম। ”


মন্তব্য