kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধরা দিতে আসছেন অধরা

শাহীন সুমনের ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’র একক নায়িকা। হাতে আছে আরো দুই ছবি। অধরা খানকে নিয়ে লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ধরা দিতে আসছেন অধরা

বাবা থাকেন বিদেশে। তিনি পরিবারের বড়।

তাই চাপটাও বেশ। সব চাপ এক হাতেই সামলাচ্ছেন অধরা। পাঁচ বছর ধরে ছোট ভাইবোনের পড়ালেখার খোঁজখবর থেকে শুরু করে সব ধরনের দায়িত্ব পালন করছেন।

মডেলিং ও টিভি নাটকে অভিনয় করেন আগে থেকেই। চলচ্চিত্রে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিলেন ২০১৩-তে। অনেক পরিচালকই তাঁকে নায়িকা করার আগ্রহ দেখায়, কিন্তু ধরা দেননি অধরা। চেয়েছেন প্রথম ছবিটা করবেন নামি কোনো পরিচালকের। অপেক্ষার পালা শেষ হলো এই থার্টিফার্স্ট নাইটে। জমকালো এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অধরাকে ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’তে চুক্তিবদ্ধ করলেন শাহীন সুমন। ত্রিভুজ প্রেমের এই ছবিতে সুযোগ পেয়ে বেশ খুশি অধরা। তাঁর বিপরীতে দুই নায়ক—সুমিত ও আসিফ নুর। এর মধ্যে ৫০ শতাংশ শুটিং শেষ। অধরা বলেন, ‘শাহীন সুমন ভাইয়ের হাত ধরেই বাপ্পী-মাহি চলচ্চিত্রে এসেছেন। তাঁরা এখন প্রতিষ্ঠিত। নিশ্চয় আমিও একদিন মাহির মতো তারকা হতে পারব। ’

চলচ্চিত্রে নামার প্রস্তুতি শুরু করেছিলেন পাঁচ বছর আগেই। শুরুতেই নাচ। তিন বছর হলো অভিনয়টা শিখছেন। শুটিং না থাকলে নাচ ও অভিনয়ের প্র্যাকটিসেই বেশির ভাগ সময় চলে যায়। প্রথম ছবি মুক্তির আগেই নতুন ছবি পেয়েছেন—শফিক হাসানের ‘একটাই মন’। হাতে আছে রয়েল খান ও রাজু চৌধুরীর ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব। বলেন, “এপ্রিলে ‘একটাই মন’-এর শুটিং। জুনের মধ্যেই শুটিং শেষ করতে পারব। জুলাইয়ে করব রাজু ভাইয়ের ‘এক মিনিট’-এর শুটিং। ”

বই পড়তে ভালোবাসেন অধরা। প্রিয় লেখক হুমায়ূন আহমেদ। সুনীল-শীর্ষেন্দুর লেখাও পছন্দ। প্রতিবছর বইমেলা থেকে প্রচুর বই কেনেন। তবে এবারের মেলায় যাওয়া হলো না। কারণ মা অসুস্থ। তাঁকে নিয়ে ব্যাংকক গেছেন ডাক্তার দেখাতে। কথা হচ্ছিল অনলাইনে। ফিরবেন ২০ মার্চ। “প্রায় এক মাস থাকতে হচ্ছে ব্যাংককে। এর মধ্যে ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’ ছবির শিডিউল ছিল। কিন্তু উপায় নেই। মায়ের সুস্থতা আগে। পরিচালককে অনুরোধ করেছি কিছুদিন পরে শুটিং করার জন্য। তিনি অনুরোধ রেখেছেন”—বললেন অধরা।

নতুন কিছু বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হওয়ার প্রস্তাব পেয়েছেন, পেয়েছেন কিছু ধারাবাহিক নাটকের প্রস্তাবও। ফিরিয়ে দিয়েছেন সব। চলচ্চিত্রে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার আগে আর ছোট পর্দায় মুখ দেখাবেন না।

অধরার প্রিয় অভিনেত্রী শাবানা। একসময় তাঁর ওপর গল্প তৈরি করে সিনেমা নির্মিত হতো। অধরার স্বপ্ন, একদিন তাঁকে ঘিরেও তৈরি হবে গল্প।

ঘুরে বেড়ানো তাঁর প্রিয় শখ। মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ভারতসহ অনেক দেশেই গেছেন। ক্যারিয়ারে ব্যস্ততা বাড়লেও ঘুরে বেড়ানোর জন্য হাতে আলাদা সময় রাখবেন।


মন্তব্য