kalerkantho


মিয়ানমারে ৫ গণকবরের সন্ধানে জাতিসংঘ ও মার্কিন উদ্বেগ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:০০



মিয়ানমারে ৫ গণকবরের সন্ধানে জাতিসংঘ ও মার্কিন উদ্বেগ

ছবি অনলাইন

মিয়ানমারের রাখাইনে গু দার পাইন গ্রামে ৫ টির বেশি গণকবরের সন্ধান পাওয়া গেছে। আরো কিছু গণকবরের কথা জানাচ্ছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো। এসব গণকবরের সন্ধানে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সাক্ষাৎকার এবং সরবরাহ করা সময়-চিহ্নিত মোবাইল ফোন ভিডিও’র ভিত্তিতে গণকবরের সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়।

আরো পড়ুন : স্ত্রীকে হত্যার পর পাকিস্তানি মন্ত্রীর আত্মহত্যা

গণকবরের খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হিদার নুয়ার্ট বলেছেন, “আমরা গণকবরের খবরে খুবই উদ্বিগ্ন। আমরা ঘটনাটি খুবই সতর্কতার সঙ্গে নজরে রাখছি। মানবাধিকারের অপব্যবহার ও তা লঙ্ঘনে জড়িতদের বিচারের মুখোমুখি করতে সহযোগিতা করাই আমাদের লক্ষ্য।”

নুয়ার্ট বলেন, গণকবরের সন্ধানের এ খবরের পরিপ্রেক্ষিতে এখন উত্তরাঞ্চলীয় রাখাইন রাজ্যে নৃশংসতার অভিযোগের একটি স্বাধীন ও বিশ্বাসযোগ্য তদন্তে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা করাটা প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে।

আরো পড়ুন : স্যানিটারি ন্যাপকিন হাতে 'প্যাড ম্যান'-এর প্রচারণায় আলিয়া ভাট

প্রায় একই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টিফানে দুজারিক। তিনি বলেছেন, “ গণকবরের খবরে আমরা অত্যন্ত উদ্বিগ্ন। এ খবরই প্রমাণ করে রাখাইনে জাতিসংঘের প্রবেশের অনুমতি প্রয়োজন। এমন খবর যাচাইয়ের ক্ষেত্রে আমাদের সেখানে প্রবেশাধিকার দেওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ।”

মিয়ানমার সরকার রাখাইনে গু দার পাইন গ্রামের মত গণহত্যা চালানোর কথা বরাবরই অস্বীকার করে আসছে। চলতি বছর জানুয়ারিতে প্রথমবারের মতো রাখাইনের ইনদিন গ্রামে দশ রোহিঙ্গার মাত্র একটি গণকবরের কথা স্বীকার করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।

তবে বিভিন্ন সংবাদ প্রতিবেদনে, মিয়ানমার সেনাবাহিনী পরিকল্পিতভাবে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে এবং আরো অনেক গণকবরে শতাধিক মানুষের লাশ থাকতে পারে বলে জানা যাচ্ছে।



মন্তব্য

Imran commented 15 days ago
মরার আগে উদ্বেগ প্রকাশ করে না, মরার পরে উদ্বেগ।