kalerkantho


রোহিঙ্গা শিশুদের কলেরা থেকে রক্ষায় ব্যবস্থা নিচ্ছে বাংলাদেশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২১:৪০



রোহিঙ্গা শিশুদের কলেরা থেকে রক্ষায় ব্যবস্থা নিচ্ছে বাংলাদেশ

কক্সবাজার জেলার ১২টি আশ্রয় শিবির এবং মিয়ানমার সীমান্তের কাছে অস্থায়ীভাবে বসবাসরত ৬ সপ্তাহ থেকে ৬ বছর বয়সী রোহিঙ্গা শিশুদের কলেরা ও অন্যান্য প্রতিরোধযোগ্য রোগের টিকা দান কর্মসূচি আজ থেকে শুরু হয়েছে। 

আজ ইউনিসেফের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ইউনিসেফ, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) এবং জিএভিআই ও ভ্যাসিন অ্যালায়েন্সের সহযোগিতায় বাংলাদেশ সরকার এই কর্মসূচি শুরু করেছে। 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই কর্মসূচির আওতায় কক্সবাজার জেলার উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলার প্রায় ২ লাখ ৫৫ হাজার শিশুকে চিকিৎসা দেয়া হবে। সরকার ও স্বাস্থ্য অংশীদারগণ কলেরা চিকিৎসা ও প্রতিরোধে তাদের সহযোগিতা বৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে। 

বিভিন্ন সূচকে রোহিঙ্গা ক্যাম্প ও অন্যান্য স্থানে বসবাসরত রোহিঙ্গা শিশুদের অসুস্থতা বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করে বাংলাদেশে ইউনিসেফের প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বেইগবেডার বলেন, রোহিঙ্গাদের মত দুস্থ জনগণ সাধারণতঃ নিয়মমাফিক কলেরার টিকা গ্রহণ করে না।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, হু আর্লি ওয়ার্নিং অ্যালার্ট অ্যান্ড রেসপন্স সিস্টেম (ইডাব্লিউএআরএস) ও এম. ডিসিনিস স্যান্স ফ্রান্টিরসে (এমএসএফ)-এর সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, গত ১২ নভেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবির ও অন্যান্য বাসস্থানে ৭২২ জন কলেরায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ৯ জন মারা গেছেন। 

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, এই রোগ প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকার সম্ভাব্য সব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। 

তিনি বলেন, এখানে কলেরার অব্যাহত প্রাদুর্ভাবে সরকারের অনুরোধে হু, ইউনিসেফ ও অন্যান্য স্বাস্থ্য অংশীদারগণ দ্রুত সাড়া দেয় এবং এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করায় আমরা তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই।


মন্তব্য