kalerkantho


চলচ্চিত্র

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



চলচ্চিত্র

ব্যথার দান : অভিনয়ে আলমগীর, শাবানা, দিলারা। পরিচালক কামাল আহমেদ। সকাল ১০টা ২ মিনিট, মাছরাঙা টেলিভিশন।

গল্পসূত্র : ছোটবেলা থেকেই মানিক ও পান্নার মধ্যে দারুণ বন্ধুত্ব। মানিকের বাবার নাইজেরিয়ায় চাকরি হয়। মানিক চলে যাওয়ায় একা হয়ে পড়ে পান্না। মা-বাবা হারা বন্ধুর মেয়ে তৃষ্ণাকে বাসায় নিয়ে আসে পান্নার বাবা। দুজনকে সমান স্নেহে বড় করলেও বখে যায় তৃষ্ণা। দেশে ফিরে মানিক পান্নাকে বিয়ে করতে চাইলে বাধা হয়ে দাঁড়ায় তৃষ্ণা।

 

আঁধারে আলো : অভিনয়ে বসন্ত চৌধুরী, সুমিত্রা দেবী। পরিচালক হরিদাস ভট্টাচার্য। সকাল ১১টা ৩৫ মিনিট, ডিডি বাংলা।

গল্পসূত্র : জমিদারের ছেলে সত্যেন্দ্রনাথ চৌধুরী কলকাতায় পড়াশোনা করে। মায়ের ইচ্ছা ছেলেকে বিয়ে দেবে। দরিদ্র বিধবার ১১ বছরের মেয়ে রাধারানীকে মায়ের খুব পছন্দ; এমনকি পাকা কথাও দিয়ে রেখেছে। কিন্তু এ বিয়েতে কিছুতেই রাজি নয় সত্যেন্দ্র। বিএ পরীক্ষা দিতে কলকাতায় ফিরে যায় সে। সেখানে গিয়ে ঘটনাচক্রে বাইজি বিজলীর প্রেমে পড়ে।

 

কুলি নাম্বার ওয়ান : অভিনয়ে গোবিন্দ, কারিশমা কাপুর। পরিচালক ডেভিড ধাওয়ান। বিকেল ৫টা ২০ মিনিট, মুভিজ ওকে।

গল্পসূত্র : হুঁশিয়ারচাঁদের দুই মেয়ে। স্বভাবে লোভী হুঁশিয়ারচাঁদ নিজের মেয়েদের ধনী পরিবারে বিয়ে দিতে চায়। বিয়ের জন্য গরিব পাত্রের খোঁজ নিয়ে এলে পণ্ডিত সাদিরামকে অপমান করে হুঁশিয়ার। প্রতিশোধ নিতে সাদিরাম বাসস্টেশনের কুলি রাজুকে সিঙ্গাপুরফেরত ধনী হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেয় হুঁশিয়ারচাঁদের সঙ্গে।

           

কুংফু হাসল : অভিনয়ে স্টিফেন চাও, ব্রুস ল্যাং। পরিচালক স্টিফেন চাও। সকাল ১১টা ৪৫ মিনিট, স্টার মুভিজ।

গল্পসূত্র : গত শতাব্দীর ত্রিশের দশকের চীন। সাংহাই শহরের বিভিন্ন এলাকায় রাজত্ব করে বেড়ায় বিভিন্ন গ্যাং। এদের মধ্যে সবচেয়ে ভয়ংকর হচ্ছে ‘এক্স গ্যাং’। সিং আর তার বন্ধু বন চায় সেই গ্যাংয়ে নাম লেখাতে। কিন্তু তার আগে নিজেদের যোগ্য হিসেবে প্রমাণ করতে হবে। তাদের দায়িত্ব দেওয়া হয় এক বস্তির বাড়িওয়ালীকে হত্যা করার। কিন্তু সেটা বাস্তবায়ন করতে গিয়ে একের পর এক ঝামেলায় জড়িয়ে পড়তে থাকে সিং।



মন্তব্য