kalerkantho

কচুয়ার গোবিন্দপুর ও দামুড়হুদার কাদিপুর স্কুল

আকাশের নিচে চলে ক্লাস

কচুয়া (চাঁদপুর) ও দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুল ভবনের একাধিক শ্রেণিকক্ষের পলেস্তারা খসে পড়েছে। ফলে শ্রেণিকক্ষগুলো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে, তাই বারান্দা ও খোলা আকাশের নিচে চলছে পাঠদান। এ চিত্র চাঁদপুরের কচুয়ার গোবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের।

এ ব্যাপারে কয়েকজন অভিভাবক বলেন, ‘সন্তানদের স্কুলে পাঠিয়েও নিরাপদ নই।’

অন্যদিকে প্রধান শিক্ষক শাহীনুর আক্তার বলেন, ‘বৃষ্টি হলে ঘোষণা ছাড়াই স্কুল বন্ধ রাখতে হয়।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নীলিমা আফরোজ সম্প্রতি স্কুলটি পরিদর্শনে গিয়ে জেলা প্রশাসকের তহবিল থেকে টিন বরাদ্দ দেওয়ার ঘোষণা দেন। একই সঙ্গে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দরপত্র ডেকে নতুন ভবন নির্মাণের আশ্বাস দেন তিনি। ভবন নির্মাণের জন্য এরই মধ্যে মাটি পরীক্ষা (সয়েল টেস্ট) করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

একই চিত্র দেখা গেছে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার কাদিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। সেখানে গাছতলায় মাদুর বিছিয়ে পড়ানো হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। এর কারণ স্কুলভবন ঝুঁকিপূর্ণ ও ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছে লিখিত অভিযোগ করলেও কোনো কাজ হয়নি বলে অভিযোগ স্কুল কর্তৃপক্ষের। বর্ষা শুরুর আগেই সংস্কার কিংবা নতুন ভবন নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

বর্তমানে স্কুলটিতে ২১৬ জন শিক্ষার্থী আছে।

প্রধান শিক্ষক আসমা খাতুন বলেন, শ্রেণিকক্ষের দেয়ালের চতুর্দিকে ফাটল ধরেছে। ছাদের পলেস্তারা খসে রড বেরিয়ে গেছে। বৃষ্টি হলেই ছাদ চুইয়ে পানি পড়তে থাকে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা সাকি ছালাম বলেন, ‘ভবন ঝুঁকিপূর্ণ না; তবে জরাজীর্ণ হয়ে গেছে। ভবন মেরামতের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দুই লাখ টাকার চাহিদা পাঠিয়েছি। আশা করছি, দ্রুত স্কুলটি সংস্কার করা হবে।’

 

মন্তব্য