kalerkantho


মণিরামপুরে বিয়ের ভোজে সংঘর্ষ, তালাক

মণিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিয়ে পড়ানোর পর শুরু হয় খাবার পরিবেশন। এ সময় বরের চাচাতো ভাইয়ের প্যান্টে মাংসের ঝোল পড়ে যায়। এ নিয়ে বর ও কনেপক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এর জেরে ঘটনাস্থলেই নববধূকে তালাক দেন স্বামী। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৯ জন আহত হয়। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে যশোরের মণিরামপুরের চালুয়াহাটি গ্রামে।

চালুয়াহাটি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সরদার আব্দুল হামিদ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে চালুয়াহাটি গ্রামের ফরিদ উদ্দিনের মেয়ে শীলা খাতুনের সঙ্গে পাশের ঝিকরগাছা উপজেলার দোস্তপুর গ্রামের আয়ুব হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেনের বিয়ে হয়। পরে খাবার পরিবেশনের সময় বরের চাচাতো ভাই হুমায়ূন কবিরের প্যান্টে মাংসের ঝোল পড়ে যায়। এ নিয়ে বর ও কনেপক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে বিয়ের খরচ হিসেবে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে স্ত্রীকে তালাক দেন স্বামী। সংঘর্ষে মিলন হোসেন, মন্টু হোসেন, জিল্লুর রহমান, মুকুল হোসেন, শামসের আলী, মোতলেব গাজীসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৯ জন আহত হয়। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রাজগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ গোলাম মোর্তজা জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

বিয়ে করতে গিয়ে জরিমানা গুনলেন বর

অন্যদিকে সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি জানান, নীলফামারীর সৈয়দপুরে নাবালিকাকে বিয়ে করতে আসার অপরাধে এক বরকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সৈয়দপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার সরকারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এ জরিমানা করা হয়। সেই সঙ্গে ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে না দেওয়ার মুচলেকা নেওয়া হয় মেয়ের মা-বাবার কাছ থেকে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে নীলফামারীর সৈয়দপুর পৌরসভা এলাকার পশ্চিম পাটোয়ারীপাড়ায়।



মন্তব্য