kalerkantho


স্বাস্থ্য খাত

চোখ হারানো ২০ রোগী পেল ক্ষতিপূরণ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



চুয়াডাঙ্গার ইম্প্যাক্ট হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা চোখ হারানো ২০ রোগীকে পাঁচ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিয়েছে ইম্প্যাক্ট হাসপাতাল (ইম্প্যাক্ট মাসুদুল হক মেমোরিয়াল কমিউনিটি হেলথ সেন্টার) কর্তৃপক্ষ। উচ্চ আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার সকালে হাসপাতালের সভাকক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তর করা হয়। রোগীদের হাতে চেক তুলে দেন চুয়াডাঙ্গার সিভিল সার্জন মো. খায়রুল আলম।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুরের ইম্প্যাক্ট জীবনমেলা হাসপাতালের প্রশাসক ডা. সাইফুল ইমাম, চুয়াডাঙ্গা ইম্প্যাক্ট হাসপাতালের সিনিয়র মেডিক্যাল অফিসার ডা. পারভীন ইয়াসমিন ও ঢাকার ইম্প্যাক্ট ফাউন্ডেশনের অর্থ ব্যবস্থাপক মঞ্জুরুল ইসলাম। ডা. সাইফুল ইমাম বলেন, ‘১৭ রোগীকে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আদালতের নির্দেশ থাকলেও আমরা মানবিক কারণে চক্ষুশিবিরে অংশ নিয়ে চোখ হারানো ২০ রোগীকেই ক্ষতিপূরণ দিচ্ছি।’

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০ রোগীকে পাঁচ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ছাড়াও তাদের চোখের যেকোনো চিকিৎসার ব্যয়ভার সারা জীবন বহন করবে ইম্প্যাক্ট হাসপাতাল।

প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে চুয়াডাঙ্গার ইম্প্যাক্ট হাসপাতালে চক্ষুশিবির অনুষ্ঠিত হয়। চক্ষুশিবিরের দ্বিতীয় দিনে (৫ মার্চ) ২৪ জনের চোখে অস্ত্রোপচার (অপারেশন) করা হয়। এর মধ্যে ২০ জনের একটি করে চোখ নষ্ট হয়ে যায়। ১৯ জনের একটি করে চোখ তুলে ফেলতে হয়। পরে এ ব্যাপারে ১ এপ্রিল আইনজীবী অমিত দাশগুপ্ত হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট করেন।



মন্তব্য