kalerkantho


গ্রাহকদের অর্ধশত কোটি টাকা নিয়ে উধাও

ইমতিয়ার ফেরদৌস সুইট, চাঁপাইনবাবগঞ্জ   

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



চাঁপাইনবাবগঞ্জের গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্ধশত কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গেছে ‘সিয়াম শিক্ষা ও স্বাস্থ্য উন্নয়ন ফাউন্ডেশন’ নামের একটি বেসরকারি সংস্থা (এনজিও)। দুই দিন ধরে এনজিওর প্রধান কার্যালয়সহ শাখা অফিসগুলোতে তালা ঝুলছে। এ অবস্থায় গ্রাহকদের তোপ এড়াতে গাঢাকা দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক মাসুদ রানাসহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এদিকে সিয়ামের প্রতারণায় সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শত শত গ্রাহক। টাকা ফিরে পাওয়ার আশায় অফিসগুলোতে ভিড় করছে তারা।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বারোঘরিয়া ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর স্কুলপাড়া গ্রামের আয়েশ উদ্দিনের ছেলে মাসুদ রানা কয়েক বছর আগে সিয়াম শিক্ষা ও স্বাস্থ্য উন্নয়ন ফাউন্ডেশন নামে একটি এনজিও প্রতিষ্ঠা করে ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলেন। এভাবে গত পাঁচ বছরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী ও নওগাঁর বিভিন্ন এলাকায় অফিস খুলে গ্রাহকদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ আমানত সংগ্রহ করে এনজিওটি। কিছু লোককে ঋণ দেওয়া হলেও অধিক হারে মুনাফার কথা বলে গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্ধশত কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া হয়। এরপর কাউকে কিছু না বলেই দুই দিন আগে জেলা শহরের বড় ইন্দারা মোড়ে অবস্থিত এনজিওটির প্রধান কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে উধাও হয়ে যান সিয়ামের নির্বাহী পরিচালক মাসুদ রানা। বিষয়টি জানাজানি হলে শনিবার সকাল থেকে এনজিওটির অফিসগুলোতে ভিড় জমাতে থাকে গ্রাহকরা। এ অবস্থায় অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও পালিয়ে যান।

শনিবার বিকেলে বারোঘরিয়া লক্ষ্মীপুর এলাকায় অবস্থিত সিয়ামের কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, শতাধিক গ্রাহক তাদের টাকা তোলার জন্য অপেক্ষা করছে।

বারোঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের জানান, গ্রাহকদের প্রায় ৪৯ কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়েছে এনজিওর লোকজন। এতে এলাকার অসংখ্য গরিব মানুষ পথে বসেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সমাজসেবা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক সিরাজুম মনির আফতাবী জানান, তাঁরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি জিয়াউর রহমান বলেন, অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য