kalerkantho


জনশক্তি ব্যবসায় ব্যস্ত চেয়ারম্যান!

মির্জাপুরে ইউপি সদস্যরা ভাতা পাচ্ছেন না

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্যরা সম্মানী ভাতা পাওয়ার দাবিতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। এতে চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন খানের বিরুদ্ধে জনশক্তি রপ্তানি ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে।

গতকাল রবিবার সকালে ইউপির আটজন সদস্য অভিযোগটি জমা দেন। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, ২০১৬ সালের ২৮ মে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ফারুক হোসেন খান নিয়মিত অফিসে আসেন না। মাঝেমধ্যে এলেও ইউপি সদস্যদের নিয়ে মাসিক উন্নয়ন সভা না করে তাঁর অফিসকক্ষে জনশক্তি রপ্তানি ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। এই ব্যবসায় জড়িতরা ভিড় জমানোর কারণে ইউপি সদস্যরা সেখানে বসতে পারেন না। গত ২৫ এপ্রিল ১১ জন ইউপি সদস্য তৎকালীন ইউএনও ইসরাত সাদমীনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। পরে ইউএনও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আজগর হোসেনকে তদন্তের নির্দেশ দেন। আজগর তদন্তের কাজ শুরু করেন এবং ৩ জুন ১১টায় শুনানির সময় ধার্য করেন। ওই দিন সকালে ইউপি চেয়ারম্যান সদস্যদের সঙ্গে ৯ দফা দাবিতে আপস করেন। তিনি সম্মানী ভাতা বাবদ সোনালী ব্যাংক মির্জাপুর শাখায় ইউপি সদস্য মো. কাশেম আলীর নামে দুই লাখ ৩৩ হাজার ৪৫০ টাকার একটি চেক দেন। অভিযোগটি প্রত্যাহার করান। পরে ওই চেক দিয়ে ব্যাংক থেকে টাকা উত্তোলন করতে গিয়ে ইউপি সদস্যরা জানতে পারেন, পর্যাপ্ত টাকা নেই। এরপর চেয়ারম্যানকে বিষয়টি জানালে তিনি ‘দিই, দিচ্ছি’ বলে দিন পার করেন। গত ২১ জুন চেকটি ডিজঅনার করা হয়। ইউপি সদস্যরা ডিজঅনার চেক দিয়ে মামলার উদ্যোগ নিলে চেয়ারম্যান টাকা দেওয়ার কথা বলেন।

ইউপি সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মো. মতিয়ার রহমান, আবুল কাশেম, আনন্দ কুমার সরকার, মামুন মিয়া, বাদশা মিয়া, আবুল হাসান, সেলিম ও বন্দনা রানী দাস জানান, ইউপি সদস্যদের মাসিক সম্মানী ভাতা নির্ধারণ করা হয়েছে চার হাজার ৪০০ টাকা। নির্বাচনের পর থেকে ২৮ মাসের সম্মানী ভাতা পাবেন তাঁরা। সে হিসেবে প্রত্যেক ইউপি সদস্য এক লাখ ২৩ হাজার ২০০ টাকা করে পাবেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন জানান, তাঁর ইউপিতে প্রায় সাড়ে চার হাজার হোল্ডিং রয়েছে। সরকারের ধার্য কর আদায় করা যায় না। অবস্থাশালীদের কাছ থেকে কর আদায় করা হয়। গত অর্থবছরে তিন লাখ টাকা কর আদায় হয়েছে। ইউপি সদস্যদের গত অর্থবছরের সম্মানী ভাতা পরিশোধও করা হয়েছে। নিয়মিত কর আদায় না হওয়ায় সরকার নির্ধারিত সম্মানী ভাতা দিতে পারছেন না।

মির্জাপুরের ইউএনও মো. আব্দুল মালেক বলেন, ‘তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 



মন্তব্য