kalerkantho


আসামিদের হুমকিতে নিরাপত্তাহীন বাদী

বরগুনায় নীরব প্রশাসন

বরগুনা প্রতিনিধি   

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে মামলা করায় বরগুনা সদর উপজেলার পশ্চিম কালিরতবক গ্রামের স্বপন মল্লিকের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনার পর ১৮ দিন পেরিয়ে গেলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ। এদিকে আসামিদের অব্যাহত হুমকিতে আতঙ্কে দিন পার করছে বাদীর পরিবার।

ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা যায়, জমি নিয়ে পূর্বশত্রুতার জেরে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছিল কালিরতবক গ্রামের রাজ্জাক চৌকিদারের লোকজন। টের পেয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় ভুক্তভোগী পরিবার। পরে স্থানীয় ইউপি সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে নিরাপত্তা চেয়ে বরগুনা থানায় সাধারণ ডায়েরি করে তারা। কিন্তু পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেওয়ার আগেই গত ৫ সেপ্টেম্বর গভীর রাতে আগুন দিয়ে তাদের ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেয় প্রতিপক্ষের লোকজন।

জমি নিয়ে বিরোধের ঘটনায় এর আগে বরগুনার আদালতে ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষে একটি মামলা করেন স্বপন মল্লিক। মামলায় রাজ্জাক চৌকিদারসহ তাঁর পরিবারের সদস্যদের আসামি করা হয়। মামলার বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়, রাজ্জাক চৌকিদার বরগুনা সদর ইউনিয়নের একজন গ্রাম পুলিশ। তাঁর পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। পরে ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ স্থানীয় গণ্যমান্যরা সালিসের মাধ্যমে উভয় পক্ষের প্রাপ্য জমি বুঝিয়ে দেন। কিন্তু এর কিছুদিন পর রাজ্জাক চৌকিদার ওই সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে স্বপন মল্লিক ও তাঁর স্বজনদের জমি দখল করে। এতে বাধা দিলে ঈদুল ফিতরের আগের দিন ধারালো অস্ত্রসহ দলবল নিয়ে হামলা চালান রাজ্জাক চৌকিদার। এতে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হন স্বপন মল্লিক ও তাঁর বড় ভাই রিপর মল্লিক। এ ঘটনায় গত ১৭ জুন বরগুনা থানায় একটি মামলা করেন তাঁরা। এর আড়াই মাস পর গত ৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে রাজ্জাক চৌকিদার ফের দলবল নিয়ে স্বপন মল্লিক ও তাঁর স্বজনদের জমির ধান কাটার পাঁয়তারা করেন। এ ঘটনায় ওই দিন সন্ধ্যায় বরগুনা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন স্বপন মল্লিকের খালা মালেকা বেগম। রাতে তাঁদের বাড়িঘর আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয় রাজ্জাক চৌকিদার ও তাঁর লোকজন।

বরগুনা সদর ইউনিয়নের পশ্চিম কালিরতবক গ্রামের ইউপি সদস্য ছিদ্দিকুর রহমান জানান, রাজ্জাক চৌকিদারের বিরুদ্ধে বরগুনা থানাসহ বিভিন্ন আদালতে নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, চাঁদাবাজিসহ ১৫টির বেশি মামলা রয়েছে। তাঁর নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাও আছে।

বরগুনা সদর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম আহাদ সোহাগ বলেন, রাজ্জাক চৌকিদারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপরাধের অভিযোগ রয়েছে। একজন গ্রাম পুলিশ হিসেবে দাপ্তরিক নিয়ম-কানুন ও শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণে তাঁর বিরুদ্ধে বরগুনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগপত্র ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।

ভুক্তভোগী স্বপন মল্লিক বলেন, ঘরবাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ায় গৃহহারা হয়ে পড়েছেন তাঁরা। প্রতিপক্ষের অব্যাহত হুমকিতে নিরাপত্তা নিয়েও শঙ্কিত। এ অবস্থায় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহায়তা কামনা করছেন তিনি।

অভিযুক্ত রাজ্জাক চৌকিদার জানান, ঘটনার দিন রাতে ইউনিয়ন পরিষদে ডিউটিতে ছিলেন তিনি। কে বা কারা ঘরে আগুন দিয়েছে তা তিনি জানেন না। জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এ ঘটনায় তাঁকে জড়ানো হচ্ছে।

বরগুনা থানার ওসি মো. মাসুদুজ্জামান বলেন, দ্রুত আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য