kalerkantho


ছাত্রদল সভাপতির স্বীকারোক্তি

আরেকটি অস্ত্র উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রহমান রনির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরো একটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার ভোরে ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুরে অরিয়ন গ্রুপের বালুর মাঠ থেকে একটি পাইপগান উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানার এসআই কামরুল ইসলাম বাদী হয়ে রনির বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা করেন।

এর আগে একটি অস্ত্র মামলায় রনিকে তিন দিনের রিমান্ড শেষে আদালতে পাঠানো হয়। নতুন করে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনার মামলায় সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, মশিউর রহমান রনিকে (৩০) ডিবি পরিচয়ে তুলে নেওয়ার অভিযোগ ছিল পরিবারের। তবে পুলিশ বলছে, গত সোমবার সকালে তাঁকে পিস্তল, গুলিসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সোমবার সকাল ৬টায় দাপা ইদ্রাকপুর থেকে রনিকে গ্রেপ্তার করা হয়। তখন তাঁর কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল ও তিনটি গুলি উদ্ধার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম সেদিন জানান, ১৭ সেপ্টেম্বর ভোরে টহল পুলিশ একজনকে আটক করে তল্লাশি করলে তাঁর কাছে তিন রাউন্ড গুলিভর্তি একটি বিদেশি পিস্তল পাওয়া যায়। পরে তাঁকে থানায় নিয়ে জানা যায়, তাঁর নাম মশিউর রহমান রনি।

রনির ছোট ভাই মহিবুর রহমান রানা বলেন, ‘রনি ১৫ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় পারিবারিক কাজে ঢাকা যায়। রাত সাড়ে ১০টায় অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি ঢাকা থেকে টেলিফোনে জানায়, কয়েকজন সাদা পোশাকধারী নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে রনিকে একটি কালো মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে গেছে। এর পর থেকে নিখোঁজ ছিল রনি। প্রশাসনের অভিযোগ মিথ্যা। কারণ আমার ভাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় একটিও ব্যক্তিগত অভিযোগ নেই। যেসব অভিযোগে মামলা হয়েছে, এর সবই রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড করতে গিয়ে হয়েছে। শনিবার রাতে আটকের পর নাটক সাজাতে এক দিন পর গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।’



মন্তব্য