kalerkantho


সেতু নির্মাণ না করায় দুর্ভোগ

রামপাল (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বাগেরহাটের রামপালের ফয়লাহাটে একটি বেইলি সেতুর নির্মাণকাজ শুরু না হওয়ায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

জানা যায়, বাগেরহাট সড়ক বিভাগের ওই সেতুটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের ফয়লাহাট জৌখালী স্লুইস গেটের সংযোগ খালের ওপর ২০০০ সালে নির্মাণ করা হয়। এই সেতু পার হয়ে জেলা শহর, খুলনা, মোংলা, পিরোজপুর, বরিশালসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে সাধারণ মানুষ। সেতুটির স্টিলের পাটাতন ভেঙে গেলে প্রথম দফায় ২০১৫ সালে ও দুই বছর পর ২০১৭ সালে আবারও মেরামত করা হয়। সেতুর স্টিলের বেশির ভাগ পাটাতন ফেটে গেছে। সেতুর পূর্ব মাথার একটি অংশ খালের মধ্য ধসে পড়েছে। সেতুর গা ঘেঁষে বসানো মোংলা ইপিজেড এলাকায় পানি সরবরাহের পাইপলাইনের একটি অংশ ভেঙে পড়ায় পানি সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়েছে। সেতুর ফেটে যাওয়া স্টিলের পাটাতনের ওপর দিয়ে চলাচলের সময় বিভিন্ন ধরনের যানবাহনের চাকা প্রায়ই আটকে যাচ্ছে। ফলে যানজট তৈরি হচ্ছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, এই সেতুর মোড় থেকে স্লুইস গেটের ওপর দিয়ে এক কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা চলাচলের বিকল্প থাকলেও ওই রাস্তা সংস্কারের অভাবে চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় যানবাহন নিয়ে চলাচল করা যায় না। এ কারণে সাধারণ মানুষ অনেকটা বাধ্য হয়েই ঝুঁকি নিয়ে ওই সেতুর ওপর দিয়ে চলাচল করছে। এই এলাকার সাবেক সংসদ সদস্য, বর্তমান খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, এখানে বেইলি সেতুটির পরিবর্তে একটি কংক্রিটের সেতু নির্মাণ করা হবে। ইতিমধ্যে সেতুটির দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। বাগেরহাটের একটি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সেতুটির নির্মাণকাজের দায়িত্ব পেয়েছেন বলে জানা গেছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের একজন কর্মকর্তা জানান, ওয়ার্ক অর্ডার পেলেই কাজ দ্রুত শুরু করা হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী গোলজার হোসেন বলেন, দরপত্র আহ্বান প্রক্রিয়া শেষ করে ঠিকাদার অনুমোদনের জন্য ঢাকায় এলজিইডি অফিসে পাঠানো হয়েছে। অনুুমোদন পেলেই বাগেরহাট এলজিইডি থেকে ওয়ার্ক অর্ডার দেওয়া হবে। তারপর কাজ শুরু করা হবে বলে তিনি জানান।



মন্তব্য