kalerkantho


মাটি খুঁড়ে তোলা হচ্ছে বালু ধসে পড়ছে জমি গাছপালা

আবদুল কাদির, পার্বতীপুর (দিনাজপুর)   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মাটি খুঁড়ে তোলা হচ্ছে বালু ধসে পড়ছে জমি গাছপালা

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে মাটি খুঁড়ে বালু উত্তোলন করায় পাশের জমিসহ গাছপালা-রাস্তাঘাট এভাবেই ধসে পড়ছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

পার্বতীপুর উপজেলার দুটি ইউনিয়নে অসাধু বালু ব্যবসায়ীরা মাটি খুঁড়ে বালু উত্তোলন করছে। এতে কৃষকের ফসলি জমি, গাছপালা, রাস্তাঘাটসহ বসতভিটার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসনের কাছে ভুক্তভোগীরা লিখিত অভিযোগ করেও তেমন কোনো প্রতিকার পায়নি।

জানা যায়, উপজেলার হামিদপুর ও হরিরামপুর ইউনিয়নের বেশির ভাগ জমি বেলে ও দো-আঁশযুক্ত। তাই এসব জমির দুই-তিন ফুট নিচেই রয়েছে বালুর বিশাল স্তর। সম্প্রতি প্রাকৃতিকভাবে মজুদ বালুর ওপর অসাধু কিছু বালু ব্যবসায়ী ও ইট ভাটা মালিকের কুদৃষ্টি পড়েছে। তারা এলাকার দরিদ্র কৃষকদের কাছ থেকে অধিক মূল্যে জমি কিনছে। এরপর সেখানে ড্রেজিং মেশিন বসিয়ে মাটির তলদেশ থেকে অবাধে বালু তুলছে। উত্তোলিত বালুর বেশির ভাগ ইট ভাটার কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। পাশাপাশি এলাকার বাসাবাড়ি তৈরির কাজেও বাণিজ্যিকভাবে বিক্রি করা হচ্ছে বালু।

সূত্র জানায়, বালু ব্যবসায়ীরা মাটির তলদেশের বালু তোলার ফাঁদ হিসেবে প্রথমেই দরিদ্র ব্যক্তিদের কাছ থেকে ৫-১০ শতাংশ জমি কিনে নিচ্ছে। পরে তারা ১০-১৫ ফুট গভীর করে জমি খুঁড়ে বালু তুলছে। এতে ওই স্থানে বিশাল গর্ত সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে সামান্য বৃষ্টি হলেই গর্তসংলগ্ন পাশের স্থান ধসে পড়ছে। এতে এলাকার ফসলি জমি, গাছপালা, রাস্তাঘাট হুমকির মুখে পড়ছে। 

উপজেলার খলিলপুর বালাপাড়া গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত জিয়াদুল, মনজুল ও ইসাহাক জানায়, তারা অসাধু বালু ব্যবসায়ীদের কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে এখন পর্যন্ত কোনো প্রতিকার পাননি।

এ বিষয়ে সততা ইট ভাটার মালিক আমিনুল ইসলাম বলেন, ভাটার কাজে তিনি তাঁর জমি থেকে বালু উত্তোলন করছেন। তবে এতে পাশের কোনো জমির মালিক যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হন, সে বিষয়টি লক্ষ রাখছেন।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেহানুল হক বলেন, ‘এ বিষয়ে সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি ইতিমধ্যেই হরিরামপুর ইউনিয়নের মানিক (৪৫) নামের এক অসাধু বালু ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন।’

সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু তাহের মো. সামসুজ্জামান বলেন, শিগগিরই অসাধু বালু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।



মন্তব্য