kalerkantho


টঙ্গীতে ভবনের ভাড়া না দিয়ে কারখানা স্থানান্তরের অভিযোগ

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



টঙ্গীতে ভবনের ভাড়া পরিশোধ না করে এক কারখানার বিরুদ্ধে মেশিনপত্র নিয়ে সটকে পড়ার অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার সন্ধ্যায় টঙ্গীর বিসিক শিল্প নগরীতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় স্থানীয় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা যায়, ওয়্যার অ্যান্ড স্টাইল লিমিটেড নামের একটি পোশাক কারখানা কর্তৃপক্ষ ২০১৩ সালে মাশাহা নিটিং অ্যান্ড ডায়িং কারখানার কাছ থেকে একটি ভবন পাঁচ বছরের চুক্তিতে ভাড়া নেয়। কারখানাটি নিয়মিত ভাড়া না দেওয়ায় এ বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রায় ৮৪ লাখ টাকা বকেয়া দাঁড়ায়। আগামী ৩০ অক্টোবর তাদের চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। তাই বারবার তাগাদা দেওয়া সত্ত্বেও প্রতিষ্ঠানটি তাদের বকেয়া পরিশোধ করেনি। উপরন্তু চুক্তিপত্রের মেয়াদের শেষ সময়ে ভাড়া ও কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের বেতনাদি পরিশোধ না করে পালিয়ে যাওয়ার পাঁয়তারা করে। বিষয়টি বুঝতে পেরে মাশাহা কর্তৃপক্ষ গত ২৭ আগষ্ট টঙ্গী থানায় একটি মামলাও করেছে। 

এদিকে গত রবিবার সন্ধ্যায় ওয়্যার অ্যান্ড স্টাইল লিমিটেড কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের অনুপস্থিতে ৫০-৬০ জন যুবকের সহায়তায় কারখানায় জোর করে ঢুকে পাঁচটি কাভার্ড ভ্যানের মাধ্যমে মেশিনপত্র বের করে নিয়ে যায়। এ সময় যুবকরা ভবনের পাঁচ কর্মচারীকে জিম্মি করে রাখে। এ ব্যাপারে ভবন কর্তৃপক্ষ বারবার থানায় খবর দিলেও পুলিশ আসেনি। পরে স্থানীয় লোকজনসহ কারখানার কর্মীরা ঘটনাস্থলে এলে তারা দ্রুত সটকে পড়ে।

কয়েকজন পোশাককর্মী জানায়, ওয়্যার অ্যান্ড স্টাইল লিমিটেড কর্তৃপক্ষের কাছে প্রায় ৪০০ কর্মীর বেতন-বোনাস পাওনা আছে। বকেয়া পরিশোধ না করে মেশিনপত্র নিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় তারা হতাশ হয়েছে।

এ ব্যাপারে ওয়্যার অ্যান্ড স্টাইলের প্রধান হিসাবরক্ষক তপন কুমর সিংহ বলেন, ‘ভবনের ভাড়া বকেয়ার অভিযোগ সঠিক নয়। তা ছাড়া কারখানার মেশিনপত্র আমাদের। চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ায় কারখানা স্থানান্তর করা হয়েছে।’

 



মন্তব্য