kalerkantho


সিদ্ধিরগঞ্জে অটোযাত্রীদের কাছ থেকে নেওয়া হচ্ছে দ্বিগুণ ভাড়া

সিদ্ধিরগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইল বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডেমরা রোডে লেগুনা বন্ধ করে দেওয়ায় যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে বেবিট্যাক্সি ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মালিক ও চালকদের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে কয়েকবার চালকদের সঙ্গে যাত্রীদের কথা-কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনাও ঘটেছে।

যাত্রীরা জানায়, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীর নির্দেশে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে লেগুনা চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এ সুযোগে বেবিট্যাক্সি ও অটোরিকশার মালিক ও চালকরা তাদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া আদায় করছে। তারাও বাধ্য হয়েই দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে চলাচল করছে। সব জেনেও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না বলে অভিযোগ তাদের।

যাত্রী নাসির মিয়ার অভিযোগ, ‘শিমরাইল থেকে সারুলিয়া ও রানীমহল পর্যন্ত পাঁচ টাকার জায়গায় ১০ টাকা ভাড়া আদায় করা হচ্ছে।’

শিমরাইল এলাকার আব্দুর রহিম মিয়া অভিযোগ করেন, ‘তিন মাস আগেও শিমরাইল থেকে রানীমহল পর্যন্ত তিন টাকা ভাড়া আদায় করা হতো। সেখানে এখন ১০ টাকা আদায় করা হচ্ছে। অথচ কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না পুলিশ।’

গার্মেন্টকর্মী আমেনা বেগম বলেন, ‘আমরা সীমিত বেতনে চাকরি করে কোনো রকমের জীবন কাটাই। দ্বিগুণ ভাড়া দিতে গিয়ে আমাদের প্রতি মাসে যে টাকা বেশি ভাড়া দিতে হয়, সে টাকা ঋণ করে চলতে হয়।’

তিতাস গ্যাস আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হুমায়ুন কবীর আনসারী বলেন, ‘যেভাবে যাত্রীদের জিম্মি করে ভাড়া আদায় করছে, এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।’ অসাধু চালক-মালিকদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে বেবিট্যাক্সিচালক সুমন মিয়ার বক্তব্য, ‘আমাদের চাঁদার হার বাড়ানোয় আমরা বাধ্য হয়েই অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছি।’

যোগাযোগ করা হলে নারায়ণগঞ্জের ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক (টিআই-প্রশাসন) মোল্যা তসলিম হোসেন বলেন, ‘বেশি ভাড়া আদায়ের বিষয়টি আমাদের জানা ছিল না। চালক ও মালিকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’



মন্তব্য