kalerkantho


গাজীপুরে খুনের দায়ে সাতজনের মৃত্যুদণ্ড

মৃত্যুদণ্ড ছাড়াও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



গাজীপুরে এক ব্যবসায়ীকে খুনের দায়ে সাতজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার সকালে গাজীপুুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ কে এম এনামুল হক এ রায় দেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন গাজীপুর মহানগরীর গজারিয়া পাড়ার জলিল মেম্বারের ছেলে রাজীব হোসেন রাজু (২৯), আবদুল জব্বারের ছেলে কাইয়ুম (৩২), মোহাম্মদ আলী ওরফে ছোট আলী (২৭), ডেগেরচালার বাসিন্দা হোসেন আলী (৩৪), কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার বরুদিয়া এলাকার রেনু মিয়ার ছেলে রাজিব হোসেন (২৯), কাপাসিয়ার ধরপাড়ার আফছার উদ্দিনের ছেলে ফারুক হোসেন (৩২) ও তরগাঁওয়ের বাসিন্দা মন্তাজ উদ্দিন মোন্তার ছেলে শফিকুল ইসলাম পারভেজ (৩৩)।

মৃত্যুদণ্ড ছাড়াও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে। অন্য একটি ধারায় তাঁদের প্রত্যেককে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন একই আদালত।

এ ছাড়া রায়ে আসামি কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরের সাহেদল এলাকার আবদুর রশিদের ছেলে মাসুদকে (৩২) পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অন্যদিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় গাজীপুর মহানগরীর গজারিয়া পাড়ার বাসিন্দা এনামুল হক ও কিশোরগঞ্জের কটিয়াদির আসমিতা এলাকার শামছুল হককে খালাস দেওয়া হয়েছে।

দণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে রাজিব হোসেন, ফারুক হোসেন ও হোসেন আলী পলাতক। বাকি আসামিরা রায় ঘোষণার সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গাজীপুর মহানগরীর পূর্ব চান্দনা এলাকার নির্মাণকাজের সেন্টারিং ব্যবসায়ী মিলন ভূঁইয়া সঙ্গী শাহজাহানকে সঙ্গে নিয়ে ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় গাজীপুর সদরের বাঘেরবাজার থেকে মোটরসাইকেলে বাসায় ফিরছিলেন। ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের ৪ নম্বর গেট এলাকায় পৌঁছালে একদল দুর্বৃত্ত ব্যারিকেড দিয়ে তাঁদের থামায়। পরে শাহজাহানকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মিলন ভূঁইয়াকে ছুরিকাঘাত ও গলায় রশি পেঁচিয়ে হত্যা করে মোটরসাইকেল, ছয় হাজার টাকা ও মোবাইল ফোনসেট নিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় নিহতের মামা আক্তার হোসেন বাদী হয়ে জয়দেবপুর থানায় মামলা করেন। প্রথমে থানা, পরে ডিবি পুলিশ ও সবশেষে সিআইডির পরিদর্শক নাজমুল হক ১০ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানি শেষে বিচারক ওই রায় দেন।

 



মন্তব্য