kalerkantho


নবীগঞ্জের ১৪টি গ্রামে নেই প্রাথমিক বিদ্যালয়

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ১৪টি গ্রামে নেই কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয়। গ্রামগুলোতে প্রাথমিক বিদ্যালয় না থাকায় শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছে  বেশির ভাগ শিশু। অনেকে আবার বিদ্যালয় দূরে হওয়ায় প্রতিদিন স্কুলে যেতে চায় না। বিদ্যালয়ে যাতায়াতের দূরত্ব বেশি হওয়ায় অভিভাবকরা তাদের ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠিয়ে চিন্তাগ্রস্ত থাকেন। তাই প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গ্রামগুলোতে বিদ্যালয় স্থাপনের জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

পাঁচ বছর আগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সারা দেশে বিদ্যালয়বিহীন গ্রামে এক হাজার ৫০০ বিদ্যালয় নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করে। ওই প্রকল্পের আওতায় নবীগঞ্জে চারটি বিদ্যালয় নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে তিনটি বিদ্যালয় চালু করা সম্ভব হয়েছে। প্রকল্পের শর্ত অনুযায়ী যে গ্রামে জনসংখ্যা দুই হাজারের বেশি, যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত, প্রয়োজনীয় খাসজমি আছে বা ভূমিদাতা হিসেবে ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান আছে এবং দুই কিলোমিটারের মধ্যে কোনো বিদ্যালয় নেই, ওই সব গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। ওই শর্তের আলোকে নবীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস নবীগঞ্জ উপজেলার বিদ্যালয়বিহীন গ্রামের তালিকা তৈরি করে। প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের তালিকা অনুযায়ী নবীগঞ্জ উপজেলার বড় ভাকৈর (পশ্চিম) ইউনিয়নের রামপুর পশ্চিমাংশ, সোনাপুর (দক্ষিণ পাড়া), আউশকান্দি ইউনিয়নের চৈতন্যপুর, কুর্শি ইউনিয়নের মধ্য এনাতাবাদ, মুসানগর, করগাঁও ইউনিয়নের কুড়িসাইন, সর্দারপুর, বাউসা ইউনিয়নের গহরপুর, নোয়াগাঁও, ভরপুর, ধুলচাতল, দেবপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিণ হোসেনপুর, পানিউমদা ইউনিয়নের নোওয়াগাঁও (উত্তর) গ্রামগুলোতে এখন পর্যন্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়নি।

নবীগঞ্জ উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জিয়াউল হক বলেন, ‘এরই মধ্যে গ্রামগুলোর তালিকা তৈরি করা হয়েছে এবং কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।’



মন্তব্য