kalerkantho


ভালুকায় ছিনতাই হওয়া ডিমভর্তি পিকআপ উদ্ধার নারায়ণগঞ্জে

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ময়মনসিংহের ভালুকা থেকে ছিনতাই হওয়া ডিমভর্তি পিকআপটি উদ্ধার করা হয়েছে। ভালুকা মডেল থানার পুলিশ গত শুক্রবার রাতে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ তালতলা থেকে পিকআপটি উদ্ধার এবং ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত একজনকে গ্রেপ্তার করে। ওই সময় উদ্ধার করা হয় ১০ হাজার ডিম। এ ঘটনায় ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।

গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা মূল্যের ৭০ হাজার ২০০ ডিম বোঝাই পিকআপটি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার গারোবাজার থেকে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক হয়ে ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছিল। রাত ১০টার দিকে পিকআপটি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ভালুকার লাবিব সোয়েটার ফ্যাক্টরির কাছে পৌঁছলে সাদা রঙের একটি প্রাইভেট কারে আসা কয়েকজন ছিনতাইকারী পুলিশের রঙিন সিগন্যাল বাতি ব্যবহার করে পিকআপটির গতি রোধ করে। ওই সময় তারা ভয়ভীতি দেখিয়ে পিকআপের চালক ফারুক হোসেন, হেলপার মানিক ও কর্মচারী পিয়ার আলীকে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেয়। পরে ছিনতাইকারীরা ডিমভর্তি পিকআপটি নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।

গত শুক্রবার রাতে ভালুকা মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদারের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে সোনারগাঁ উপজেলার তালতলার শামছুল হক মার্কেটের নূর উদ্দিন নূরুর ডিমের আড়তের সামনে থেকে পিকআটি উদ্ধার করে। এ সময় ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত বাদল মিয়াকে গ্রেপ্তার ও ১০ হাজার ডিম উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত বাদল মিয়া নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার হলদাবাড়ী গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। ওই ঘটনায় ডিমের মালিক ঢাকার শেরশাহ সুরী রোডের মমিন মিয়া বাদী হয়ে ভালুকা মডেল থানায় একটি মামলা করেন। মামলায় গ্রেপ্তার বাদল মিয়া ছাড়াও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার বাহাদুরপুর গ্রামের সাহাজুদ্দিনের ছেলে নুর উদ্দিন ওরফে নুরু, একই এলাকার আবদুল গাফফারসহ আরো একজনকে আসামি করা হয়েছে।

ভালুকা মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার জানান, ডিমবোঝাই পিকআপ ছিনতাইয়ের অভিযোগে গ্রেপ্তার বাদল মিয়াকে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে শনিবার আদালতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।



মন্তব্য