kalerkantho


কালের কণ্ঠে সংবাদ প্রকাশের পর

সেবা দিয়ে চমকে দিল দ্বিতীয় রেজিস্ট্রি অফিস

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



এক দিনেই দলিলের নকল, তিন দিনে তল্লাশির ফলাফল এবং সাত দিনে পাওয়া যাচ্ছে জমির মূল দলিল। অবিশ্বাস্য হলেও বাস্তবে এমন গ্রাহক সেবা মিলছে গাজীপুর সদর দ্বিতীয় যুগ্ম সাবরেজিস্ট্রি অফিসে। অথচ এই সাবরেজিস্ট্রি অফিস মানেই ছিল দুর্ভোগ আর নানা বিড়ম্বনা। এ নিয়ে কালের কণ্ঠে ‘গাজীপুরের দুই সাবরেজিস্ট্রি অফিস, আয় বেড়েছে তিন গুণ, নেই সমস্যার সমাধান’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে উদ্যোগ নেন বর্তমান সাবরেজিস্ট্রার। এরপর বদলে যেতে থাকে দুই অফিসের চিত্র।

গাজীপুর নকলনবিশ সমিতির সভাপতি মোছাব্বির হোসেন কিরন এবং দলিল লেখক সমিতির উপদেষ্টা জামাল উদ্দিন জানান, আগে এক-দুই সপ্তাহের আগে নকল এবং পাঁচ-ছয় বছরের আগে মূল দলিল পাওয়া যেত না। ভলিউম এলোমেলো থাকায় তল্লাশি দিয়ে দলিল পাওয়া ছিল কষ্টসাধ্য। অফিস ছিল ছয়তলায়। নারী ও বৃদ্ধদের সিঁড়ি ভেঙে ওপরে উঠতে অনেক কষ্ট হতো। ছিল না ক্রেতা-বিক্রেতাদের বসার জায়গা। গত মাসে সদরের দ্বিতীয় যুগ্ম অফিস নিচতলায় সুপরিসর জায়গায় স্থানান্তর করা হয়েছে। এখন এক দিনেই নকল ও সাত দিনে জমির মূল দলিল পাচ্ছে জমির ক্রেতারা। শত বছরের পুরনো হলেও মাত্র তিন দিনেই দেওয়া হচ্ছে তল্লাশি দলিল। দেশের আর কোনো রেজিস্ট্রি অফিসে এমন সেবার নজির নেই। শুধু তাই নয় দেশের মধ্যে একমাত্র গাজীপুর সদরের দ্বিতীয় যুগ্ম অফিসের নকলনবিশরা নিয়মিত বেতন পান। এসব অসম্ভব সম্ভব হয়েছে বর্তমান সাবরেজিস্ট্রারের কারণে।

সাবরেজিস্ট্রার মো. মনিরুল ইসলাম জানান, বর্তমান সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দেশের সব সরকারি অফিসে ডিজিটাল সেবা কার্যক্রম চালু হয়েছে। পিছিয়ে ছিল সাবরেজিস্ট্রি অফিস।



মন্তব্য