kalerkantho


চলনবিলে নৌকাডুবি

আরো দুজনের মরদেহ উদ্ধার

পাবনা প্রতিনিধি   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



পাবনার চাটমোহর উপজেলার হাণ্ডিয়াল এলাকার চলনবিলে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ আরো দুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। এ নিয়ে নিখোঁজ পাঁচজনেরই মরদেহ উদ্ধার করা হলো।

গতকাল রবিবার সকাল ৭টার দিকে চলনবিলের সমাজ এলাকা থেকে নিখোঁজ ঈশ্বরদী আঞ্চলিক কৃষি গবেষণাকেন্দ্রের বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা বিল্লাল হোসেন গণি ও আমবাগান এলাকার ব্যবসায়ী স্বপন বিশ্বাসের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে লাশ দুটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এর আগে নৌকাডুবির ঘটনায় শনিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করেছিল ফায়ার সার্ভিস ও ডুবুরিদল। তারা হলো ঈশ্বরদীর মোশারফ হোসেন মুসার স্ত্রী শাহনাজ পারভীন পারুল, স্বপন বিশ্বাসের শিশুকন্যা সাদিয়া খাতুন ও বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা বিল্লাল হোসেন গণির স্ত্রী মমতাজ পারভীন শিউলী।

গত শুক্রবার সন্ধ্যায় চলনবিলের হাণ্ডিয়াল পাইকপাড়া ঘাট এলাকায় নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর চাটমোহর ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ও রাজশাহীর একটি ডুবুরিদল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে।

দুই নৌকার সংঘর্ষে নিহত ১

এদিকে ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি  জানান, টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যমুনা নদীতে দুই নৌকার সংঘর্ষে মর্তুজ আলী (৫০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছে চারজন। গত শনিবার রাতে উপজেলার নিকলাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত মর্তুজ উপজেলার কালীপুর গ্রামের ময়েন আলীর ছেলে। স্থানীয়রা জানায়, গত শুক্রবার সিরাজগঞ্জে মেয়ে বিয়ে দেন মর্তুজ আলী। মেয়ে শাহনাজকে আনতে শনিবার সেখানে যান তিনি। রাত ৯টার দিকে মেয়ে, মেয়ের জামাইসহ আত্মীয়-স্বজন নিয়ে যমুনা নদী দিয়ে নৌকায় করে বাড়ি ফিরছিলেন। তাঁদের বহনকারী নৌকাটি নদীর নিকলাপাড়া এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি নৌকার সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মর্তুজ নিহত হন। আহত হয় চারজন। তাদের মধ্যে তিনজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও গুরুতর আহত রাবেয়াকে টাঙ্গাইল শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে গাবসারা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির বলেন, রাতের অন্ধকারে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ না থাকায় প্রশাসনের অনুমতি নিয়ে লাশ দাফনের প্রস্তুতি চলছে।



মন্তব্য