kalerkantho


দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে গৃহবধূর লাশ

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের খেজুরবাগ এলাকায় পারিবারিক কলহের জেরে মাহমুদা আক্তার রূপা (১৯) নামের এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রূপার স্বজনদের দাবি, স্বামী আহমেদ আলী তাঁকে হত্যা করেছেন। রূপার পরিবার সূত্রে জানা যায়, আহমেদ আলী দীর্ঘদিন রূপার গৃহশিক্ষক ছিলেন। একপর্যায়ে তাঁদের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দুই বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়। তাঁদের সংসারে একটি পুত্রসন্তানের জন্মও হয়েছে। তবে বিয়ের পর থেকে তাঁদের সাংসারিক জীবন ভালো যাচ্ছিল না। প্রায় সময়ই ঝগড়াবিবাদ লেগে থাকত। দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. কাউসার আহমেদ জানান, শুক্রবার রাতে বাথরুমের সাওয়ারের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে রূপা। এ সময় তাঁর স্বামী আহমেদ আলী ঘটনা টের পেয়ে বাড়ির অন্য ভাড়াটিয়াদের সহযোগিতায় রূপাকে উদ্ধার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ (মিটফোর্ড) হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার দুপুরে রূপা মারা যান। খবর পেয়ে রূপার স্বজনরা হাসপাতাল মর্গে পৌঁছে স্বামী মেরে ফেলেছে বলে চেঁচামেচি করতে থাকলে আহমেদ আলী সেখান থেকে পালিয়ে যান। নিহতের গলায় ফাঁস দেওয়ার দাগ ছাড়া কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে বলা যাবে এটা হত্যা না আত্মহত্যা। এ ব্যাপারে মামলা প্রক্রিয়াধীন।

 



মন্তব্য