kalerkantho

অবহেলিত

রাজশাহী অফিস   

২২ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



অবহেলিত

রাজশাহী মহানগরীর ১ নম্বর ওয়ার্ডের পশ্চিম কাঁঠালবাড়িয়া এলাকায় এখনো ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই। ছবিটি গতকাল তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাজশাহী শহর থেকে পশ্চিমে সিটি করপোরেশনের ১ থেকে ৭ নম্বর ওয়ার্ড। ওয়ার্ডগুলোর বাসিন্দাদের অভিযোগ, রাস্তাঘাট এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ কিছুই ঠিক নেই। রয়েছে মাদক সমস্যা। শহরের কেন্দ্র থেকে দূরে হওয়ায় এ ওয়ার্ডগুলোকে বাসিন্দারা অবহেলিত হিসেবে জানে। ওয়ার্ডের উন্নয়নে হাজারও প্রতিশ্রুতি এখনো আলোর মুখ দেখেনি। সামনে সিটি নির্বাচনে জয়ী মেয়র-কাউন্সিলর এবার অন্তত এ ওয়ার্ডগুলোর উন্নয়নে কাজ করবেন, এমনটাই আশা বাসিন্দাদের।

বৈদ্যুতিক খুঁটি নেই, ঝুঁকিতে এলাকাবাসী

নগরীর ২ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন হড়গ্রাম নতুনপাড়ার (মোল্লাপাড়া) বেশ কয়েকটি জায়গায় বৈদ্যুতিক খুঁটি নেই। বাঁশের খুঁটির মাধ্যমে বৈদ্যুতিক সংযোগ দেওয়া হয়েছে। বাঁশের এ খুঁটিগুলো আবার একদিকে হেলে পড়েছে। এলাকাবাসী জানায়, চার বছর আগে এলাকায় বৈদ্যুতিক সংযোগ দেওয়া হয়। কিন্তু এখনো স্থায়ী খুঁটির ব্যবস্থা করা হয়নি। যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ঝুঁকি নিয়েই বসবাস করতে হচ্ছে।

মাদক সমস্যা

নগরীর ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাশিয়াডাঙ্গা মোড়ে অবস্থিত স্বাস্থ্যকেন্দ্রে আশানুরূপ চিকিৎসাসেবা মেলে না বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। এলাকার বাসিন্দা দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘সড়কে বাতি নেই, রয়েছে সুপেয় পানির সংকট।’

কাশিয়াডাঙ্গার মো. গোলাম হোসেন জানান, এ এলাকার সবচেয়ে বড় সমস্যা মাদক। এ ছাড়া পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা নেই। সামান্য বৃষ্টিতে তৈরি হয় জলাবদ্ধতা। ওয়ার্ডের শুঁড়িপাড়ার রেললাইনের পাশে একটি বসতি রয়েছে। বসতিটিকে এলাকার লোকজন মাদকের স্পট বলে চেনে।

পাঁচ বছরেও পাল্টায়নি

নগরীর দশপুকুর, বিলসিমলা, বহরমপুর, লক্ষ্মীপুর ডিঙ্গাডোবা রেলপথের এক পাশ নিয়ে ৩ নম্বর ওয়ার্ড। এসব এলাকায় বসতির সংখ্যা বাড়ছে। তবে সেই অনুপাতে ড্রেন ও রাস্তাঘাট বাড়েনি। এলাকার রাস্তাঘাট, ড্রেন ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কোনো উন্নয়ন হয়নি। পাঁচ বছর আগে যেমন ছিল, এখনো তেমনই আছে। রয়েছে মাদক সমস্যা।

সুযোগ-সুবিধার অভাবে পিছিয়ে

নগরীর ৪ নম্বর ওয়ার্ডকে পিছিয়ে পড়া ওয়ার্ড বলে মনে করে বাসিন্দারা। পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধার অভাব রয়েছে। ওয়ার্ডের কেশবপুর এলাকার বাসিন্দা মনিরুদ্দিন পান্না জানান, ১ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মধ্যবর্তী হড়গ্রামে একটি কাঁচাবাজার ও একটি প্রাথমিক চিকিৎসাকেন্দ্র স্থাপন এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি।

পুনর্বাসন ও কর্মসংস্থান হোক সবার আগে

নগরীর ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে রয়েছে মাদক সমস্যা। ওয়ার্ডের বেশির ভাগ যুবক বেকার। তাদের দ্রুত পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা প্রয়োজন বলে জানান ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার শাহীন আলম। এ ছাড়া ৫ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন টুলটুলিপাড়ায় রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেললাইনের পাশে সরকারি জায়গা দখল করে কয়েকটি বসতভিটা গড়ে উঠেছে। এলাকায় নেই কোনো খেলার মাঠ। অনেকে এখনো গ্যাসের সংযোগ থেকে বঞ্চিত।



মন্তব্য