kalerkantho


উপাচার্যকে ‘হুমকি’ পাল্টাপাল্টি অবস্থান

হাজী দানেশ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

দিনাজপুর প্রতিনিধি   

১৮ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (হাবিপ্রবি) এক আলোচনাসভায় জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবু ইবনে রজ্জবের দেওয়া বক্তব্য নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। প্রশাসনও দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে প্রকাশ্যে পরস্পরের বিরুদ্ধে কর্মসূচি পালন করেছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গত বৃহস্পতিবার দিনাজপুরের প্রগতিশীল কর্মচারী পরিষদের একাংশ আলোচনাসভার আয়োজন করে। সভায় আবু ইবনে রজ্জব তাঁর বক্তব্যের এক পর্যায়ে বলেন, ‘এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে থাকার কারণে আমি দু-দুটি হত্যা মামলার আসামি হয়েছি। আমি এতে বিন্দুমাত্র চিন্তা করি না। যদি আরো দুই শটি হত্যাকাণ্ডের আসামি হতে হয়, আমি এ বিশ্ববিদ্যালয়ের পাশে থাকার জন্য রেডি আছি।’

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাশেমকে উদ্দেশ করে এই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বলেন, ‘আপনি দিনাজপুরের মানুষ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করবেন, আর তা না হলে আমরা দিনাজপুরের মানুষ নিয়ে আপনাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করব, আপনি পালিয়ে যাওয়ার সময় ও রাস্তা পাবেন না।’

এই বক্তব্যের রেকর্ডিং ওই দিন থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মোবাইল ফোনে ছড়িয়ে পড়ে। এতে উপাচার্যপন্থীদের মধ্যে দেখা দেয় চাপা উত্তেজনা। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ‘হাবিপ্রবি পরিবার’ ব্যানারে উপাচার্যপন্থীরা ‘আবু ইবনে রজ্জবের হুমকির’ প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে। তারা এ বক্তব্যের নিন্দা জানায়।

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী শিক্ষক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ও ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিম্যাল সায়েন্স অনুষদের ডিন মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক ডা. মো. ফজলুল হক বলেন, ‘আমরা আবু ইবনে রজ্জবের বক্তব্যের পর থেকে উদ্বিগ্ন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো পার্ট নন। তাই তিনি এ ধরনের বক্তব্য প্রদান করতে পারেন না। আমরা এর বিচার চাই।’

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন পোস্ট গ্র্যাজুয়েট স্টাডিজ অনুষদের ডিন অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান প্রমুখ। একই সময় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একাংশ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশের দুই পাশে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দেয়। তারা ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. তারিকুল ইসলামকে প্রত্যাহার করার দাবি জানান।

অন্যদিকে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক মো. রুহুল আমিনপন্থী প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের শিক্ষকরা একই স্থানে দুপুর ১২টার দিকে অবস্থান নিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন। এ সময় প্রগতিশীল শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. বলরাম রায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মু. আবুল কাশেমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘ভিসি হাবিপ্রবিকে রংপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপ দিতে চান। তিনি রংপুর অঞ্চলের লোকজন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করছেন। তিনি হুইপ ইকবালুর রহিমের উন্নয়নকে ম্লান করে দিচ্ছেন।’

 



মন্তব্য