kalerkantho


শৈলকুপায় দুই শিল্পপতির দ্বন্দ্বের শিকার গ্রামবাসী

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   

২৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝিনাইদহ-১ (শৈলকুপা) আসনে ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী দুই শিল্পপতির এলাকায় প্রভাব বিস্তারের দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে। গত ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বকশিশ নেওয়াকে কেন্দ্র করে গ্রামের তিন যুবকের ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শুধু তা-ই নয়, তাদের ডেকে নিয়ে জোর করে হত্যাচেষ্টার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি আদায় করা হয়েছে। তাদের বাড়িঘরেও ভাঙচুর চালানো হয়েছে। এসব ঘটনার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করে দোষীদের শাস্তির দাবি করেছে এলাকাবাসী।

দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়া শিল্পপতিদের একজন বিশ্বাস বিল্ডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম দুলাল বিশ্বাস। অন্যজন প্রিয়াঙ্কা গ্রুপের চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান সজল। বিষয়টি এলাকায় ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার আগুনিয়াপাড়া গ্রামের কৃষক আলী হোসেন, সিদ্ধি গ্রামের সেকেন্দার আলী ও আজমত আলী দীর্ঘদিন দুলাল বিশ্বাসের কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে। তবে কিছুদিন আগে তারা সাইদুর রহমান সজলের কর্মসূচিতে অংশ নেয়। এতে তাদের ওপর ক্ষুব্ধ হয় দুলাল বিশ্বাস ও তার লোকজন। গত ১৫ জুন সন্ধ্যায় ঈদ খরচ আনার বিষয় নিয়ে মুঠোফোনে পাঁচপাখিয়া গ্রামের নুর আলম বিশ্বাসের সঙ্গে কথা হয়। সে অনুসারে তারা ঈদ খরচ আনার জন্য দুলাল বিশ্বাসের বাড়ি গেলে নুর আলম বিশ্বাস, সাইদুল মেম্বারসহ ২০-২৫ জন তাদের ওপর চড়াও হয়ে শারীরিক নির্যাতন শুরু করে। একপর্যায়ে তাদের ঘরের ভেতর আটকে রেখে মারধর করে। পরে দুলাল বিশ্বাসকে হত্যা করার জন্য টাকা নিয়েছে বলে জোর করে স্বীকোরক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করে। এরপর তাদের শৈলকুপা থানার পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

এ বিষয়ে নজরুল ইসলাম দুলাল বলেন, ‘ঈদের আগে ইফতারের পূর্বমুহূর্তে একদল সন্ত্রাসী আমার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় আলী হোসেন, সেকেন্দার আলী ও আজমত আলী নামের তিন সন্ত্রাসীকে আটক করা হয়। পরে তাদের পুলিশে দেওয়া হয়।’

শৈলকুপা থানার ওসি আলমগীর হোসেন জানান, এ ঘটনায় আটক তিনজনকে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এসব ঘটনার প্রতিবাদে গত মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলার আবাইপুর ইউনিয়নের আবাইপুর বাজারে মানববন্ধন করে এলাকাবাসী।



মন্তব্য