kalerkantho


মাদকবিরোধী অভিযান

সাবেক কাউন্সিলর ও তরুণ লীগ সভাপতি আটক

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৪ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে সাবেক এক নারী পৌর কাউন্সিলর ও মুন্সীগঞ্জে জেলা তরুণ লীগের সভাপতিসহ তিনজনকে ইয়াবাসহ আটক করা হয়েছে। এ ছাড়া হবিগঞ্জের মাধবপুরে চার বোতল ভারতীয় মদসহ একজনকে আটক করেছে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি)। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

শনিবার সকালে বাগেরহাটের পূর্ব সরালিয়া এলাকা থেকে মোরেলগঞ্জ পৌরসভার সাবেক পৌর কাউন্সিলর নাছিমা বেগমকে (৪৫) আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তার স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেন পালিয়ে যায়। মোরেলগঞ্জ থানার ওসি মো. রাশেদুল আলম জানান, নাছিমা এবং তার স্বামী দীর্ঘদিন ধরে মাদকের কারবার করছে। পুলিশ সকালে ক্রেতা সেজে নাছিমার বাড়িতে যায়। এ সময় হাতেনাতে তাকে আটক করে এবং তার কাছ থেকে ১০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নাছিমার স্বামী পালিয়ে গেছে। এ ঘটনায় নাছিমার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে এবং তাকে বাগেরহাট চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে মুন্সীগঞ্জ শহরের যোগনীঘাট থেকে জেলা তরুণ লীগের সভাপতি মৃদুল দেওয়ানকে (৩৩) দুই সহযোগীসহ আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তার ব্যবহৃত প্রাইভেট কারটিও জব্দ করা হয়েছে। মৃদুল শহরের শ্রীপল্লীর মনসুর দেওয়ানের ছেলে।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার রাত ১টার দিকে শহরের ইসলামপুরের যোগনীঘাট সড়ক থেকে মৃদুল দেওয়ানকে আটক করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে তিন পিস ইয়াবা পাওয়া গেছে। আটককৃত তার সহযোগীরা হলো শহরের বাগ মামুদালী পাড়ার মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মাকসুদ (২৮) ও মালপাড়ার মিজানুর রহমানের ছেলে ফয়সাল (২৭)। শনিবার তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ ছাড়া হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শ্রীধরপুর এলাকা থেকে চার বোতল ভারতীয় মদসহ আপন মিয়া নামের এক মাদক কারবারিকে আটক করেছে বিজিবি। সে শ্রীধরপুর গ্রামের নূরুল ইসলামের ছেলে। এদিকে হবিগঞ্জের বিভিন্ন স্থান থেকে শুক্রবার রাত থেকে শনিবার সকাল পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে ২৩ পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

 



মন্তব্য