kalerkantho


মেঘ দেখলেই পুলিশের ভয়

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

২২ মে, ২০১৮ ০০:০০



মেঘ দেখলেই পুলিশের ভয়

শিল্পাঞ্চল পুলিশের টঙ্গী ক্যাম্প পানিতে থইথই। ছবি : কালের কণ্ঠ

শিল্পাঞ্চল পুলিশরা খুব কষ্টে আছে। আকাশে মেঘ দেখলেই তাদের মনে শঙ্কা—আজ হয়তো রান্না হবে না। ভিজে যাবে লাকড়ি, ডুবে যাবে মাটির চুলা। ময়লা পানির ওপর চৌকিতে রাত কাটাতে হবে।

একটু বৃষ্টি হলেই বানভাসি মানুষের মতো পানিবন্দি হয়ে থাকতে হয় টঙ্গীর শিল্পাঞ্চল পুলিশদের। সাত বছর ধরে চলছে এ অবস্থা। টঙ্গী ও এর আশপাশ এলাকার প্রায় দুই হাজার শিল্প-কারখানার উৎপাদন অব্যাহত রাখা ও সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে ২০১০ সাল থেকে টঙ্গীতে শিল্পাঞ্চল পুলিশের কার্যক্রম শুরু হয়। কিন্তু আজও পুলিশের স্থায়ী আবাসনব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়নি। বাধ্য হয়ে পুলিশ ক্যাম্প হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে টঙ্গী পৌরসভার পরিত্যক্ত অডিটরিয়াম ভবন। ঝুঁকিপূর্ণ ও ব্যবহারের অযোগ্য এ ভবনটি একটু বৃষ্টিতেই পানিতে ডুবে যায়।

শিল্পাঞ্চল পুলিশের কয়েকজন বলেন, বৃষ্টি হলে আশপাশ এলাকার ড্রেনের পানি এসে ভবন প্রাঙ্গণে জমা হয়। চারদিকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। পুরো ভবনের ভেতর কোমরপানি হয়। তখন ভেতরে বসবাস করা অসম্ভব হয়ে ওঠে। বিছানা ছুঁই ছুঁই করে পানি। ট্রাংক, স্যুটকেস, আলনা, আসবাব, কাপড়চোপড়সহ সব কিছু স্তূপ করে রাখতে হয় বিছানার ওপর। ঘুমানোর জায়গাই থাকে না। রান্নাবান্না থাকে বন্ধ। ডুবে যায় চুলা, ভিজে যায় লাকড়ি। অপরিকল্পিতভাবে নির্মিত ভবনটি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক থেকে অনেক নিচু জমিতে হওয়ায় সারা বছরই এর ভেতরটা গুমোট ও স্যাঁতসেঁতে থাকে।

পুলিশ সদস্যরা আরো জানান, বৃষ্টির কারণে ঠিকমতো রান্না করা যায় না। প্রায়ই খাবার তৈরিতে বিঘ্ন ঘটে। বাথরুমগুলো পানিতে ডুবে যায়। ফলে ভবনের সবখানে ছড়িয়ে পড়ে ময়লা। সব মিলিয়ে এক অস্বস্তিকর অবস্থার সৃষ্টি হয়।

গতকাল সোমবার সকালে শিল্পাঞ্চল পুলিশের টঙ্গী ক্যাম্পে গিয়ে দেখা যায়, গেট থেকে ভবনের ভেতর পর্যন্ত পানিতে সয়লাব। গ্যাস সংযোগের ব্যবস্থা না থাকায় গেটের পাশেই রান্নার জন্য তৈরি করা মাটির চুলা পানিতে ভিজে গেছে। বাথরুম, বারান্দা ও সামনের আঙিনা পানিতে ডুবে আছে। জরুরি প্রয়োজনের গাড়িগুলো ক্যাম্পাস থেকে সরিয়ে নিয়ে রাখা হয়েছে মহাসড়কের পাশে। অডিটরিয়াম ভবনের যে স্থানটি অপেক্ষাকৃত উঁচু, সেটিও ব্যবহার করার জো নেই। সেখানে রাখা হয়েছে সিটি করপোরেশনের অকেজো মালপত্র। এর পাশেই বিছানা পেতে প্রায় দেড় শ পুলিশ সদস্য বসবাস করছেন। ভেতরে ইঁদুর, চিকা, তেলাপোকাসহ নানা কীটপতঙ্গের আখড়া। বাইরের ঝোপঝাড়ে সাপের উপদ্রব। এ কারণে সব সময় তটস্থ থাকেন পুলিশ সদস্যরা।

শিল্পাঞ্চল পুলিশের টঙ্গী আঞ্চলিক কার্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আমিরুল আলম বলেন, ‘শিল্প পুলিশের টঙ্গী ক্যাম্পের জন্য স্থায়ী জায়গা খোঁজা হচ্ছে; কিন্তু পাওয়া যাচ্ছে না। আমরা এ পরিত্যক্ত মিলনায়তনটি ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছি। বৃষ্টিতে এখানে খুবই সমস্যা হচ্ছে। পানিতে ডুবে যাচ্ছে পুরো ক্যাম্পাস। ফলে সব কাজেই বিঘ্ন ঘটছে; কিন্তু কিছুই করার নেই।’


মন্তব্য