kalerkantho


নেত্রকোনার আটপাড়া

মানবপাচারকারীর বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি   

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



নেত্রকোনার আটপাড়ায় দালালচক্রের খপ্পরে পড়ে বিদেশে যেতে ইচ্ছুক কয়েক যুবক প্রতারণার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগ উপজেলার সুখারী ইউনিয়নের হাতিয়া তারাচাপুর গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন গত রবিবার বিকেলে নেত্রকোনার পুলিশ সুপারকে লিখিতভাবে জানিয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পাশের মদন উপজেলার দক্ষিণপাড়া ফকিরবাড়ীর আবুল কালাম সম্প্রতি মালয়েশিয়া থেকে ফিরেছেন। তাঁর শ্বশুরবাড়ি হাতিয়া গ্রামে। সেখানে বেড়াতে গিয়ে তিনি গ্রামের লোকজনকে মোটা অঙ্কের বেতনের প্রলোভন দেখিয়ে বিদেশ নিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। ২০১৭ সালের ৪ ডিসেম্বর হাতিয়া গ্রামের শামীম, গিয়াস উদ্দিন ও ইসলাম উদ্দিন নামে তিন যুবককে মালয়েশিয়া পাঠানোর কথা বলে আবুল কালাম প্রত্যেকের কাছ থেকে তিন লাখ ৮০ হাজার টাকা করে নেন। এরপর তিন যুবককে ঢাকায় নিয়ে যান। প্রায় ১০-১২ দিন ঢাকায় থাকার পর শামীমকে মালয়েশিয়ায় পাঠালেও গিয়াস উদ্দিন ও ইসলাম উদ্দিনকে পরে পাঠানো হবে বলে বাড়ি পাঠিয়ে দেন আবুল কালাম। কিন্তু এখন পর্যন্ত তাঁদের বিদেশ যাওয়া হয়নি।

অন্যদিকে শামীম মালয়েশিয়া বিমানবন্দরে নামার পর বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ইমিগ্রেশন পুলিশ তাঁকে বন্দি করে রাখে। পরে আরো টাকা খরচ করে শামীম দেশে ফেরেন।

শামীমের বাবা রুহুল আমিন বলেন, ‘আমি গরিব মানুষ। জমি বিক্রি করে এবং ঋণ করে কালামের কথায় ছেলেকে মালয়েশিয়ায় পাঠিয়েছিলাম। পাওনাদারদের তাগদায় তিনি এখন পাগলপ্রায়। প্রতারিত যুবকরা দালাল কালামের কাছে টাকা-পয়সা ফেরত চাইলে সে নানা ভয়ভীতি দেখাচ্ছে।’


মন্তব্য