kalerkantho


মিঠাপুকুরে গণধর্ষণের পর হুমকি

বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ মেয়েটির

রংপুর অফিস   

২৪ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



রংপুরের মিঠাপুকুরে নবম শ্রেণির এক ছাত্রী গণধর্ষণের পর অব্যাহত হুমকির মুখে বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, মেয়ের (১৪) বাবা চেংমারী ইউনিয়নের এক দিনমজুর। তাকে মতলেব মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া, মৃত সেকেন্দার আলীর ছেলে শরিফুল ইসলাম ও শাহজাহান খানের ছেলে শাকিল মিয়া গত ১১ এপ্রিল রাতে যৌন নির্যাতন করে পালিয়ে যায়। তার গোঙানির শব্দ শুনে পাশের ঘরে থাকা মা-বাবা মেয়েটিকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন মেয়ের বাবা।

স্থানীয়রা জানায়, পুলিশ এরই মধ্যে রুবেলকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে শরিফুল ও শাকিল প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এদিকে অভিযোগ পাওয়া গেছে, মামলা তুলে নেওয়ার জন্য পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে অভিযুক্তদের লোকজন। এলাকাবাসী জানায়, অভিযুক্তদের পরিবার প্রভাবশালী। মেয়ের বাবাকে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া আসামিরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও গ্রেপ্তার করছে না পুলিশ।

শুকুরেরহাট ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও স্থানীয় বাসিন্দা মাহফুজার রহমান ও রেজাউল করীম বলেন, ‘খুবই ঘৃণীত কাজ করেছে তারা। আমরা আসামিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

মেয়ের বাবা বলেন, ‘মামলা করায় আসামিপক্ষের লোকজন আমাদের প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ কারণে মেয়েটি বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে।’ মেয়েটির বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সিরাজুল ইসলাম গতকাল সোমবার বলেন, ‘মেয়েটি কয়েক দিন ধরে বিদ্যালয়ে আসছে না। শুনেছি আসামিপক্ষের লোকজন তাকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। বিদ্যালয়ের পক্ষ হতে ঘটনার প্রতিবাদে মানববন্ধন করার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’

মিঠাপুকুর থানার পরিদর্শক মোজাম্মেল হক বলেন, ‘প্রধান আসামি রুবেলকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারেও অভিযান চালানো হচ্ছে।’

 

 



মন্তব্য