kalerkantho


বখাটের ভয়ে বাড়িছাড়া ছাত্রী

স্কুলে যাওয়া বন্ধ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

২২ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



বখাটের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে নিজ বাড়ি ছেড়ে অন্য জেলায় আত্মীয়র বাড়িতে চলে যেতে হয়েছে রাজবাড়ীর নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে (১৪)। ফলে তার বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

গতকাল বুধবার দুপুরে ওই ছাত্রীর মা জানান, তাঁরা ধর্মীয় সংখ্যালঘু পরিবারের সদস্য। বেশ কিছুদিন ধরে বিদ্যালয়ে যাওয়া-আসার পথে তাঁর মেয়েকে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের বড়লক্ষ্মীপুর গ্রামের রিকশাচালক একেন সেখের বখাটে ছেলে রানা সেখ প্রেমের প্রস্তাব দেওয়াসহ উত্ত্যক্ত করে আসছে। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ১৫ দিন আগে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে রানার নেতৃত্বে একই গ্রামের সুমনের ছেলে সাইফুল পথ রোধ করে মেয়েটির। রানা মেয়েটিকে জাপটে ধরে এবং সাইফুল নানা ভঙ্গিতে তার ছবি তোলে। এতে মেয়েটি প্রচণ্ড ভয় পায় এবং ঘটনাটি বাড়িতে জানায়নি। এক সপ্তাহ আগে মেয়ে মাকে সব খুলে বলে। তিনি বিষয়টি মেয়ের বাবাসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানান। এতে রানা ক্ষিপ্ত হয়। ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালনের জন্য মেয়েটি বিদ্যালয়ে যায়। ফেরার পথে রানা তাকে থামিয়ে ছবি তোলার বিষয়টি প্রকাশ করলে বড় ক্ষতি হবে বলে হুমকি দেয়। এরপর মেয়েটি বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দেয়। নিরাপত্তার জন্য তাকে অন্য জেলায় আত্মীয়র বাড়ি পাঠিয়ে দেয় পরিবার। রানার অত্যাচার বন্ধ না হলে মেয়েকে আর বিদ্যালয়ে পাঠাতে পারবেন না বলে শঙ্কা প্রকাশ করেন মা।

ছাত্রীর মা বলেন, রানা একজন মাদকসেবী। এর আগে সে দুটি মেয়ের ব্যাগে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ভয় দেখিয়ে তাদের দিনভর ঘুরিয়েছে। ভয়ে কেউ তাকে কিছু বলার সাহস পায় না।

রাজবাড়ী শহরের শেরেবাংলা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম জানান, বেশ কয়েক দিন ধরেই ওই ছাত্রী বিদ্যালয়ে আসছে না। তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তারা বলেছে, কতিপয় বখাটের কারণে তারা মেয়েকে বিদ্যালয়ে পাঠাতে সাহস পাচ্ছে না। এ অবস্থায় পরিবারটির পাশে সবার দাঁড়ানো প্রয়োজন। না হলে অঙ্কুরেই ঝরে যাবে ছাত্রীটি।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য