kalerkantho


সোনারগাঁ

বিদ্যালয়ে ঢুকে দপ্তরির ওপর হামলা, আতঙ্ক

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৩ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয় বিদ্যালয় চলাকালে সশস্ত্র অবস্থায় কক্ষে ঢুকে দপ্তরিকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করেছে এলাকার কিছু দুর্বৃত্ত। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলার ৬৮ নম্বর চেঙ্গাকান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে সোনারগাঁ থানায় ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

আহত মাজহারুল ইসলাম বিদ্যালয়টির দপ্তরি-কাম-নৈশপ্রহরী। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, মাজহারুল ইসলামের ভাতিজা বিদ্যালয়টির চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র রাতুল হোসেনের সঙ্গে চেঙ্গাকান্দী গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ও মোগরাপাড়া এইচজিজিএস উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র লিমন হোসেনের ঘুড়ি খেলা নিয়ে কথা-কাটাকাটি হয়। এর জেরে গতকাল দুপরে দেলোয়ার হোসেন, রায়হান মিয়া, সাইফুল ইসলাম, সেলুনা আক্তার, মুক্তা আক্তার, শিল্পী আক্তারসহ আট-দশজনের একটি দল হকিস্টিক, রামদা, ছোরা ইত্যাদি দেশি অস্ত্রসহ এসে বিদ্যালয়ের কক্ষে ঢুকে রাতুলকে বকাঝকা করে। মাজহারুল প্রতিবাদ করলে তারা তাঁকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। বাধা দিতে গিয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাঈমা আক্তার আঘাত পান। এ সময় শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করতে থাকে। মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘পূর্বশত্রুতার জেরে দেলোয়ার হোসেন ও তার সহযোগীরা আমার ওপর হামলা চালিয়েছে। আমি এর ন্যায়বিচার চাই।’ অভিযুক্ত দেলোয়ার ও রায়হান মিয়া বলেন, তাঁদের নিজেদের মধ্যে সামান্য কথা-কাটাকাটি হয়েছে। বিষয়টি বসে মীমাংসা করা হবে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাঈমা আক্তার বলেন, বিদ্যালয় চলাকালে হামলা হয়। ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। এ বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান তিনি। সোনারগাঁ উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আ ফ ম জাহিদ ইকবাল বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 



মন্তব্য