kalerkantho


আশুগঞ্জে ইউএনও বদলির প্রতিবাদে রাস্তায় জনতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আশুগঞ্জে ইউএনও বদলির প্রতিবাদে রাস্তায় জনতা

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিরুল কায়সারের বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করে এলাকাবাসী। ছবি : কালের কণ্ঠ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিরুল কায়সারের বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে রাস্তায় নেমে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। গতকাল রবিবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত আশুগঞ্জ সদরের গোলচত্বর এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়। জাগ্রত আশুগঞ্জবাসী, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আশুগঞ্জ কমান্ড, ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটি আশুগঞ্জ, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, জাদুর শহর আশুগঞ্জ, আশুগঞ্জ উদ্যোক্তা ফোরাম, নবীন যুব সংঘ, উপজেলার সাতটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রেহেনা বেগম, জাগ্রত আশুগঞ্জবাসীর সদস্যসচিব ঈসা খান, আশুগঞ্জ ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি মো. মোবারক আলী চৌধুরী, আশুগঞ্জ সুন্নি জামাতের সভাপতি মো. মহিউদ্দিন মোল্লা, ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. সেলিম মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা শেখ মো. জসিম প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা অবিলম্বে আদেশ প্রত্যাহার করে আমিরুল কায়সারকে আশুগঞ্জে বহাল রাখার জোর দাবি জানান। অন্যথায় কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়। পরে গোলচত্বর ও রেলগেট এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষুব্ধ জনতা।

এদিকে ইউএনওর বদলির আদেশ প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়ে সংশ্লিষ্টদের কাছে চিঠি লিখেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ। এসব চিঠিতে ইউএনও আমিরুল কায়সার দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট ও সফল ছিলেন বলে উল্লেখ করা হয়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল-আশুগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে লেখা চিঠিতে উল্লেখ করেন, ইউএনওর বদলির খবর জেনে তিনি মর্মাহত ও ব্যথিত হয়েছেন। তা ছাড়া চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনারের কাছে লেখা এক চিঠিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হাজি মো. ছফিউল্লাহ মিয়া ও আবু নাছের আহমেদ উল্লেখ করেন, ইউএনওর বদলিতে চলমান উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ব্যাহত হবে। মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আশুগঞ্জ উপজেলা কমান্ডার মো. ইকবাল হোসাইন ও ডেপুটি কমান্ডার আবুল হাশেম আজাদও বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আলাদা আরেকটি চিঠি লিখেছেন। এসব চিঠিতে ইউএনও আমিরুল কায়সারকে আশুগঞ্জে বহাল রাখার দাবি জানানো হয়।

এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, নাগরিক সুবিধা বৃদ্ধি ও এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে আশুগঞ্জের কাচারি পুকুরপাড় থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের উদ্যোগ নেয় প্রশাসন। ২০১৭ সালের ১৫ জুলাই বেশ কিছু অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদও করা হয়। তবে কয়েকজন প্রভাবশালীর স্থাপনা উচ্ছেদ করতে গিয়ে হুমকির মুখে পড়তে হয় ইউএনওকে।

এ অবস্থায় গত ২২ ফেব্রুয়ারি ইউএনও আমিরুল কায়সারকে বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় বদলি করা হয়। এ বদলির আদেশ জানার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুকে) সমালোচনার ঝড় ওঠে। বদলির আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলনের ডাক দেয় এলাকাবাসী। 

জাতীয় পার্টির কার্যালয় ভাঙচুর

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানো হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। তবে হামলার সময় কার্যালয়ে কেউ ছিল না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার সন্ধ্যায় পৌর এলাকার স্টেশন রোডের জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে হামলা চালায় এক দল দুর্বৃত্ত। এ সময় হামলাকারীরা কার্যালয়ের দরজা ও জানালা ভাঙচুর করে। ব্যানার ও ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর থানার ওসি মো. নবীর হোসেন জানান, কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



মন্তব্য