kalerkantho


অষ্টগ্রামে সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, হাওরাঞ্চল   

২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রামের প্রত্যন্ত হাওরের খয়েরপুর-আব্দুল্লাহপুর ইউনিয়নের বাজুকা গ্রামে সুদের টাকা আদায় নিয়ে দুই পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। সোমবার দিনব্যাপী থেমে থেমে এ সংঘর্ষ চলে।

আহতদের মধ্যে বাচ্চু মিয়া, মাহবুব মিয়া ও মুনসুর আলীকে কিশোরগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ছাড়া আহত আরো ১০ জনকে অষ্টগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বাকি আহতরা হয়রানি এড়াতে হবিগঞ্জ ও সিলেটের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্র জানায়, বাজুকার চাঁদপুরহাটির রমিজ আলী তাঁর আত্মীয় সম্পর্কিত সানখালহাটির জানে আলমের কাছ থেকে সুদে টাকা ধার নেন। জানে আলম সোমবার সুদের টাকা চাইতে গেলে দুজনের মধ্যে প্রথমে বাগিবতণ্ডা হয়। এ নিয়ে পরে দুই পক্ষ দেশি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে মাঠে নামে। ওই দিন দিনভর থেমে থেমে সংঘর্ষ হয়। এতে কমপক্ষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত হয়।

অষ্টগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীনরা হচ্ছেন ইদ্রিছ আলী, হাবীব মিয়া, দেলোয়ার হোসেন, জসিম উদ্দিন, আকিকুল মিয়া, তৌহিদ মিয়া, সুজন মিয়া, হরমুজ আলী, আবু ছালেক, আসাব আলী, শাহজাহান মিয়া, শামীম মিয়া, মোবারক হোসেন ও স্বপন মিয়া।

আহত জানে আলম দাবি করেন, রমিজ আলী তাঁর কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা ধার নিয়েছিলেন। অনেক দিন ধরেই টাকা না দিয়ে সময়ক্ষেপণ করছিলেন। সোমবার রমিজের কাছে পাওনা টাকা চাইতে গেলে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের মধ্যেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে তাঁর পক্ষের ১০-১৫ জন আহত হয় বলে তিনি জানান।

অন্যদিকে রমিজ আলীর বড় ভাই হরমুজ আলী জানান, তাঁর ভাই জানে আলমের কাছ থেকে সুদের ওপর টাকা নিয়েছিলেন, এটা ঠিক। কিন্তু সুদের মাত্র আড়াই হাজার টাকার জন্য প্রতিপক্ষ তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

অষ্টগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, সংঘর্ষের ব্যাপারে গতকাল বিকেল পর্যন্ত তিনি কোনো অভিযোগ পাননি।


মন্তব্য