kalerkantho


স্বরূপকাঠিতে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে দিনমজুরকে খুন

সেনবাগে ছাত্র খুন, পঞ্চগড়ে গৃহবধূর লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



পিরোজপুরের স্বরূপকাঠিতে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে চুরির অভিযোগে দিনমজুরকে মারধর করে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নোয়াখালীর সেনবাগে স্কুলছাত্রকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। পঞ্চগড়ে গমক্ষেতে মিলেছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর গৃহবধূর গলাকাটা লাশ। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

পিরোজপুর : স্বরূপকাঠি উপজেলার দক্ষিণ আরামকাঠি গ্রামে জলাবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্যের নেতৃত্বে চুরির অভিযোগে দিনমজুর মোস্তফা চৌধুরীকে মারধর করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। পরিবারের লোকজন গতকাল শুক্রবার সকালে তাঁকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তবে ইউপি সদস্য নকিতুল্লাহ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় আটজনের বিরুদ্ধে নেছারাবাদ থানায় হত্যা মামলা করেছেন মোস্তফার স্ত্রী রাশিদা। মোস্তফার শ্যালক মোহাম্মদ বেল্লাল শেখের অভিযোগ, গত বৃহস্পতিবার রাতে দিনমজুরির টাকা নিয়ে সোহাগদলের একতার হাট থেকে বাড়ি ফিরছিলেন তাঁর ভগ্নিপতি। পথে সত্তার হাওলাদারের (মৃত) বাড়ির কাছে শাহজাহান মোল্লা, নূর জামাল, আফজাল, ইব্রাহীম চৌকিদারসহ কয়েকজন মিলে তাঁকে মারধর করে। একপর্যায়ে তারা মোস্তফাকে আরামকাঠি হাজি ইব্রাহীম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনের দোকানে ইউপি সদস্য নকিতুল্লাহর কাছে নিয়ে যায়। সেখানেও তাঁকে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে মা মঞ্জুয়ারা বেগম ও স্ত্রী রাশিদা সেখানে গিয়ে মোস্তফাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য ইউপি সদস্য ও তাঁর সহযোগীদের হাত-পা ধরে কান্নাকাটি করেন। কিন্তু তারা তা শোনেনি। গভীর রাতে তারা বাড়ি থেকে মোস্তফার অসুস্থ বাবা সোহরাব চৌধুরীকে ডেকে নেয়। পরে শর্তসাপেক্ষে সাদা কাগজে মা-বাবা ও স্ত্রীর স্বাক্ষর রেখে মোস্তফাকে তাঁদের কাছে দিয়ে দেয়। পরদিন সকালে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। অভিযুক্ত শাহজাহানের প্রতিবেশী কামরুল হাওলাদারের স্ত্রী অভিযোগ করেন, ইউপি সদস্য চুরির অভিযোগে এর আগেও মোস্তফাকে মারধর করেছে। এরপর থেকে মোস্তফা ইউপি সদস্যের সমালোচনাও করতেন। এবারের মারধরের সঙ্গে আগের ঘটনার যোগসূত্র থাকতে পারে। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে ইউপি সদস্য নকিতুল্লাহ জানান, ঘটনার সময় তিনি বরিশালে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা থেকে ফিরছিলেন। মোবাইলে খবর পেয়ে চৌকিদার ইব্রাহীমকে ঘটনাস্থলে পাঠান। রাত ১১টার দিকে তিনি আরামকাঠি হাজি ইব্রাহীম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দোকানের কাছে গেলে সেখানে মোস্তফাকে আনা হয়। মোস্তফার মা-স্ত্রীর অনুরোধে তাঁকে পুলিশে না দিয়ে মুচলেকা রেখে ছেড়ে দেওয়া হয়। এ বিষয়ে নেছারাবাদ থানার ওসি মোহাম্মদ মুনিরুল ইসলাম বলেন, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে আপাতত কিছু বলা যাচ্ছে না।

পঞ্চগড় : নিজ বাড়ির কাছে গম ক্ষেতে মিলেছে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর গৃহবধূ পুতুল হাজদার গলাকাটা লাশ। খবর পেয়ে পুলিশ গতকাল শুক্রবার দুপুরে সদর উপজেলার নুনিয়াপাড়া এলাকায় ক্ষেতটি থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠায়। পুতুল নুনিয়াপাড়ার রমেশ মুরমুর স্ত্রী ও জিতেন হাজদার মেয়ে ছিলেন। পুলিশের ধারণা, দুর্বৃত্তরা তাঁকে অন্য কোথাও হত্যা করে লাশ ঘটনাস্থলে ফেলে গেছে। এ ব্যাপারে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে। খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম ও পুলিশ সুপার গিয়াস উদ্দিন আহমদসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নোয়াখালী : স্কুলছাত্র মো. আবু শাকের শাহীনকে বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে সেনবাগ উপজেলার পশ্চিম আহম্মদপুর গ্রামে। খবর পেয়ে পুলিশ পরদিন শুক্রবার সকালে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালীর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। শাহীন কাবিলপুর হাজী মোকসুদুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণিতে পড়ত। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শাহীনের সহপাঠী, প্রবাসী চাচা ও দুই চাচিকে থানায় নিয়ে গেছে। এ ব্যাপারে হত্যা মামলা হয়েছে। শাহীনের মা রোকেয়া বেগম জানান, বৃহস্পতিবার এশার নামাজ শেষে বাড়িতে আসে তাঁর ছেলে। এ সময় মোবাইল ফোনে কল এলে সে বেরিয়ে যায়। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। গতকাল ভোরে মসজিদে যাওয়ার পথে বর্মা দীঘিরপাড় এলাকায় ধানক্ষেতে শাহীনের লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকার লোকজন তাদের (রোকেয়া) জানায়। পরে তাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। সেনবাগ থানার ওসি হারুন উর রশিদ চৌধুরী জানান, কে বা কারা শাহীনকে হত্যা করেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।



মন্তব্য