kalerkantho


মসজিদের ইমামকে অপসারণ নিয়ে উত্তেজনা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



মসজিদের ইমামকে অপসারণ নিয়ে উত্তেজনা

নারায়ণগঞ্জে সদর উপজেলা পরিষদের জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মুফতি ফয়জউল্লাহকে অপসারণের নির্দেশ দেওয়ায় মুসল্লিদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বাদ জোহর মসজিদের সামনে বিক্ষোভ করে মুসল্লিরা। পরে তাঁরা সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

জানা গেছে, সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যসচিব ও উপজেলা পরিষদের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজহার আলী মণ্ডল মসজিদটির খতিব ও ইমাম মুফতি ফয়জুল্লাহকে আগামী এক মাসের মধ্যে চাকরি থেকে অপসারণের বিষয়ে মৌখিক নির্দেশ দেন। বৃহস্পতিবার জোহর নামাজের সময় মুসল্লিদের মধ্যে এ খবর ছড়িয়ে পড়লে নামাজ শেষে তাঁরা মসজিদের বাইরে বিক্ষোভ করে। পরে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাসের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাঁকে অপসারণ না করার অনুরোধ করেন।

এ ব্যাপারে মসজিদটির খতিব ও ইমাম মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, ‘আমি মাঝেমধ্যে জেলার বাইরে ওয়াজ মাহফিলে যাই। এ কারণে সদর উপজেলা পরিষদের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আমাকে চাকরি থেকে অপসারণ করার হুমকি দেন।’

সদর উপজেলা পরিষদের জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্যসচিব ও উপজেলা পরিষদের প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আজহার আলী মণ্ডল বলেন, ‘মসজিদটির খতিব ও ইমাম মুফতি ফয়জুল্লাহকে নিয়োগ দেওয়ার সময় শর্ত ছিল তিনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়াবেন। তাঁকে প্রতি মাসে বেতনসহ মোট ২০ হাজার টাকা দেওয়া হচ্ছে। অথচ তিনি প্রায়ই ছুটি নিয়ে বাইরে চলে যান। এ কারণে তাঁকে পদত্যাগ করতে বলা হয়েছে।’

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস বলেন, কয়েকজন মুসল্লি ইমামকে বহাল রাখার দাবি জানাতে তাঁর কাছে এসেছিলেন। তিনি তাঁদের কথা শুনেছেন। বিষয়টি ভেবে দেখছেন।



মন্তব্য