kalerkantho


সোনারগাঁয় খাল দখল করে রাস্তা নির্মাণ

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সোনারগাঁয় খাল দখল করে রাস্তা নির্মাণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের সনমান্দী ইউনিয়নের ১০ গ্রামের কয়েক শ বিঘা ফসলি জমি অনাবাদি হয়ে পড়েছে। ইউনিয়নের ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে ছনকান্দা গ্রামের বিল পর্যন্ত পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খাল ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ করায় এ অবস্থা হয়েছে।

এ নিয়ে একাধিকবার মানববন্ধনসহ উপজেলা প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেও কোনো ফল পায়নি ভুক্তভোগী কৃষকরা। অবিলম্বে খালটি পুনঃখনন করা না হলে যেকোনো মুহূর্তে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা আছে।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, সনমান্দী ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য ফজলুল হক ও যুবলীগ নেতা শাহাদাত হোসেন নিজেদের বাড়িতে যাওয়ার জন্য খালটির একাংশ ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ করেছেন। এতে পানি জমে ১০ গ্রামের কয়েক শ বিঘা জমি অনাবাদি হয়ে পড়েছে। তবু কোনো ব্যবস্থা নেয়নি উপজেলা প্রশাসন।

দড়িকান্দির সামসুল হক মিয়া ও রাসেল মিয়া অভিযোগ করেন, পানি নিষ্কাশনের একমাত্র খালটি দখলের পর রাস্তা নির্মাণ করায় সারা বছর কয়েক শ বিঘা জমিতে পানি জমে থাকে। এতে জমিগুলো অনাবাদি হয়ে পড়েছে।

নামাপাড়ার ইছহাক মিয়া ও জামাল হোসেন বলেন, ‘আমাদের গ্রামসহ ফতেপুর, ছনকান্দা, মহেশ্বরদী, দক্ষিণপাড়া, দড়িকান্দি, নোয়াকান্দি, বৈদ্যেরকান্দি ও মারুবদী গ্রামের মানুষের কয়েক শ বিঘা ফসলি জমি আছে এই বিলে। পানি জমে থাকার কারণে আমরা রবিশস্য বপন করতে পারিনি।’ এ অবস্থা চলতে থাকলে পরিবারসহ না খেয়ে থাকতে হবে বলে জানান বৈদ্যেরকান্দির গোলাম মোস্তফা ও সোহেল সরকার।

মারুবদীর শাহ জালাল মিয়া ও আব্দুল বাতেনের অভিযোগ, উপজেলা প্রশাসনের কাছে কয়েকবার লিখিত অভিযোগ দিলেও তারা ব্যবস্থা নেয়নি। অন্যদিকে ছনকান্দার কবির হোসেন ও আব্দুর রহিম অবিলম্বে খালটি পুনঃখননের দাবি জানান।

সনমান্দী ইউনিয়নের যুবলীগ নেতা সোহেল সরকার বলেন, খালটি দখলদারদের কাছ থেকে উদ্ধার করে খননের দাবি জানাচ্ছি। 

তবে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ফজলুল হক ও যুবলীগ নেতা শাহাদাত বলেন, ‘আমরা খালের আংশিক দখল করেছি।’

সনমান্দী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহিদ হাসান জিন্নাহ বলেন, ফসলি জমির পানি সময়মতো নিষ্কাশন না হওয়ায় কৃষকরা রবিশস্য বপন করতে পারেনি। এতে তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খালটি পুনঃখননের জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহীনুর ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে কৃষকদের কাছ থেকে স্মারকলিপি পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, কয়েকজনের কারণে সাধারণ জনগণের দুর্ভোগ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। দ্রুত ব্যবস্থা নিতে এরই মধ্যে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।



মন্তব্য