kalerkantho


বিজয়ের আনন্দ দেশজুড়ে

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



বিজয়ের আনন্দ দেশজুড়ে

মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে গতকাল রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর একাত্তরের ১৬ ডিসেম্বর মুক্তির স্বাদ পেয়েছিল এ দেশ। গতকাল শনিবার ৪৭তম বিজয় দিবসে আনন্দে মেতে উঠেছিল পুরো জাতি। প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে সকালে বিজয় শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন স্থান ঘুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভুলতা গাউছিয়া এলাকায় গিয়ে শেষ হয়। কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান, রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান ও বসুন্ধরা গ্রুপের পূর্বাচলের (ল্যান্ড) পরিচালক রফিকুল ইসলাম রফিকের নেতৃত্বে শোভাযাত্রায় উপজেলা আওয়ামী লীগের হাজার হাজার নেতাকর্মী অংশ নেন। উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই ভূঁইয়া, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূঁইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হারেজ, জেলা পরিষদের সদস্য ও রংধনু গ্রুপের পরিচালক মিজানুর রহমান মিজান, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহসভাপতি হাফিজুর রহমান সজীব প্রমুখ।

 

 

নারায়ণগঞ্জ : শহরের চাষাঢ়া বিজয়স্তম্ভে ভোরে জেলা প্রশাসনের পক্ষে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া। পরে সংসদ সদস্য হোসনে আরা বেগম বাবলী, পুলিশ সুপার মঈনুল হক, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের পক্ষে ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এহতেশামুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক  খোকন সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আরাফাত, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক এ টি এম কামাল প্রমুখ শ্রদ্ধা জানান। অন্যদিকে বন্দর উপজেলার মদনগঞ্জে ‘বসুন্ধরা সিমেন্ট কমপ্লেক্স’-এ আয়োজিত বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে বসুন্ধরা সিমেন্ট ফ্যাক্টরির কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শ্রমিকরা অংশ নেয়। উপস্থিত ছিলেন এম জেড হোসেন আরজু, এ এইচ এম রায়হানুল হক, মো. ইকবাল হোসেন, মো. মুসা ও মো. মোশারফ হোসেন।

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) : সোনারগাঁ উপজেলা পরিষদ মাঠে দুপুরে ৬০০ মুক্তিযোদ্ধাকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। এর আগে সকালে পৌরসভার ঐতিহাসিক আমিনপুর মাঠে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে কুচকাওয়াজ হয়। এ সময় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা, সোনারগাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহীনুর ইসলাম, সোনারগাঁ থানার ওসি মোরশেদ আলম উপস্থিত ছিলেন। বিকেলে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) : কেরানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মাঠে আয়োজিত বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে ৪৫০ জন মুক্তিযোদ্ধা ও ২২ জন শহীদ মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহে এলিদ মাইনুল আমিনের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, উপজেলা প্রকৌশলী শাজাহান আলী, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ফখরুল আশ্রাফ, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ফখরুল আলম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) শহিদুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মাজেদা সুলতানা, তেঘরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান জজ মিয়া, মো. ইয়াসিন প্রমুখ।

মুন্সীগঞ্জ : শহরের শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আনিস-উজ-জামান ও পৌর মেয়র ফয়সাল বিপ্লব। পরে মুন্সীগঞ্জ স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত হয়। দুপুরে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়েছে। অন্যদিকে লৌহজং উপজেলায় বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ওসমান গণি তালুকদার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. মনির হোসেন প্রমুখ। এ ছাড়া শ্রীনগর, সিরাজদিখান, টঙ্গিবাড়ী ও গজারিয়া উপজেলায় শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

গাজীপুর : ভোরে শহরের ঐতিহাসিক রাজবাড়ি মাঠের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিস্তম্ভে জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর ও পুলিশ সুপারের পক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সুলাইমান পুষ্পস্তবক দেন। দুপুরে জেলা প্রশাসন ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর আলমের উদ্যোগে দুটি শোভাযাত্রা বের হয়। পরে শহরের বঙ্গতাজ অডিটরিয়ামে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে পৌর বিএনপির উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়ছে। এ ছাড়া জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গাজীপুর সরকারি মহিলা কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক দেওয়ার পাশাপাশি আলোচনাসভা ও বিভিন্ন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

 



মন্তব্য